বুধবার, নভেম্বর ৩০, ২০২২

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত

spot_img
Homeখাদ্য ও পুষ্টিপাকিস্তানের সামনে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ

পাকিস্তানের সামনে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ

সুপার টুয়েলভের শেষ ম্যাচের আগেও মূল ভেন্যুতে অনুশীলনের সুযোগ হয়নি বাংলাদেশের। পাকিস্তান ম্যাচ সামনে রেখে তাই দ্বিতীয় দিনের মতো রোল্টন ওভালে অনুশীলন করেছেন নুরুল হাসান সোহান, সৌম্য সরকাররা। তাদের সঙ্গে ছিলেন ইয়াসির আলী ও মেহেদী হাসান মিরাজ। দলীয় অনুশীলন না থাকলেও ব্যক্তিগতভাবে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি নিয়েছেন তারা।

আজ অ্যাডিলেড ওভালে বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায় পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। অতীতের রেকর্ড পক্ষে না থাকলেও ভারত ম্যাচে পাওয়া আত্মবিশ্বাসকে কাজে লাগাতে চান সাকিব আল হাসানরা। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পক্ষে আছে অ্যাডিলেডের আবহাওয়াও। গতকাল রৌদ্রোজ্জ্বল আকাশের নিচে অনুশীলন করেছেন ক্রিকেটাররা। আবহাওয়ার তথ্য বলছে, আজ অ্যাডিলেডে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই।

গ্রুপ-২-এর পয়েন্ট টেবিল বলছে, সেমির লড়াইয়ে ম্যাচটি বাংলাদেশ-পাকিস্তান উভয় দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। তবে সে ক্ষেত্রে সমীকরণ গড়ে দেবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতের নিজেদের ম্যাচের ফল। বাংলাদেশ ম্যাচ শুরুর আগেই দক্ষিণ আফ্রিকার (ভোর ৬টায় নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচ) ভাগ্য জেনে যাওয়ার কথা; কিন্তু ভারতের ভাগ্য (দুপুর ২টায় শুরু জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ) জানতে অপেক্ষা করতে হবে সন্ধ্যা পর্যন্ত। দুই দলের কেউ হারলেই পয়েন্ট ও রান রেট বিবেচনায় বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচের ফলটি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তবে শক্তি, সামর্থ্য আর প্রতিপক্ষের কথা ভাবলে সেমির পথে এগিয়ে রোহিত শর্মা ও টেম্বা বাভুমারা। সেমির সমীকরণ যেমনই হোক, শেষ ম্যাচটা জয় দিয়েই শেষ করতে চাইবে টাইগাররা।

তবে পাকিস্তানের সঙ্গে ১৮ দেখায় ১৫ বারই জিতেছে বাবর আজমের দল। বাংলাদেশের জয় মাত্র দুটি, তাও ২০১৫-তে ঘরের মাঠে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে। সেবারই প্রথম পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় পেয়েছিল টাইগাররা, দ্বিতীয় জয়টি এসেছিল ২০১৬ সালের এশিয়া কাপের ২০ ওভারের সংস্করণে। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাঁচবারের দেখায় একবারও জেতেনি টাইগাররা। এবার পাকিস্তানকে হারাতে পারলে সে বৃত্তও ভাঙবেন লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা।

প্রতিপক্ষ পাকিস্তান হলেই ব্যাটিংয়ে উজ্জ্বল হয়ে ওঠেন সাকিব আল হাসান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, লিটন দাসরা। পাকিস্তানের বিপক্ষে ১০ ম্যাচে ৪৫ গড়ে সাকিবের সংগ্রহ ৩৬০। সাত ম্যাচে ২০.২৮ গড়ে ১৪২ রান আফিফের আর চার ম্যাচে ৩১ গড়ে ১২৪ রান করেছেন লিটন। এবার অস্ট্রেলিয়াতেও একই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাইবেন তারা। তবে তাদের জন্য বাধা হতে পারেন দারুণ ছন্দে থাকা শাদাব খান, মোহাম্মদ ওয়াসিম ও শাহিন শাহ আফ্রিদিরা।

ব্যাটিংয়ের মতো বোলিংয়েও এগিয়ে সাকিব। তবে সাফল্যের বিচারে এগিয়ে আছেন তাসকিন আহমেদ। চলমান বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ডানহাতি এ পেসারের প্রিয় প্রতিপক্ষ পাকিস্তান বললে ভুল হবে না। সবচেয়ে কম ইকোনমিতে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ৩৬ উইকেটের ৮টিই পাকিস্তানি ব্যাটারদের, যা অন্য যে কোনো দেশের তুলনায় দ্বিগুণ। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা সাকিব ১০ ম্যাচে ৬.৫৩ ইকোনমিতে নিয়েছেন ৬ উইকেট। এবারও একই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাইবেন তিনি। তবে এবার পাকিস্তানকে ভড়কে দিতে পারেন বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। বাবর আজমদের একাদশে বেশিরভাগ ব্যাটার ডানহাতি হওয়ায় জ্বলে ওঠার সুযোগ আছে তারও।

বাংলাদেশের বিপক্ষে দারুণ রেকর্ড আছে মোহাম্মদ রিজওয়ানের। এই ওপেনারদের দ্রুত থামানোর কাজটাই করতে হবে তাসকিন-মোস্তাফিজদের। চার-ছক্কার এই সংস্করণে শক্তি, পরিসংখ্যান খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। যে কোনো খেলোয়াড়ই নিজের দিনে বদলে দিতে পারেন ম্যাচের ভাগ্য।

ournews24.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের পছন্দ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

সর্বশেষ খবর