শুক্রবার, ডিসেম্বর ২, ২০২২

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত

spot_img
Homeজাতীয়অনেকেই ছাড়ছে ইডেন কলেজ

অনেকেই ছাড়ছে ইডেন কলেজ

ক্যাম্পাসে চাঁদাবাজি, হলগুলোতে সিট বাণিজ্য, রাজনৈতিক অস্থিরতা ও কলেজ প্রশাসনের নীরবতার বলি এখন ইডেনের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে যেসব খবর চাউর হয়েছে তাতে ঘুম উড়ে গেছে অভিভাবকদের। এতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইডেন শিক্ষার্থীদের নানাভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। সর্বশেষ এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে ও মামলা গড়িয়েছে আদালতে। চাঁদাবাজি ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বুধবার।

দেশব্যপী ইডেন কলেজ আলোচনার তুঙ্গে থাকলেও এখন পর্যন্ত কোন বিবৃতি দেননি কলেজ প্রধান অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য। এ ঘটনায় সামাজিকভাবে হয়রানির শিকার শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরাও ইডেন কলেজ প্রশাসনের গাফিলতিকেই দায়ী করছেন। তাদের মনে একটি প্রশ্নই ঘুরে ফিরে আসছে আবাসিক শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ইডেন কলেজ আসলে কতটা নিরাপদ।

সম্প্রতি ছাত্রলীগের আধিপত্যের জেরে ইডেনে কয়েক দফায় সংঘর্ষ ঘটেছে। এর মূল কারণ ছিল ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের স্বার্থের দ্বন্দ্ব। অনুসন্ধানে জানা যায়, থাকা ও খাওয়ার খরচ কম থাকায় গ্রাম থেকে আসা অধিকাংশ শিক্ষার্থী হলে উঠতে চান। কিন্তু ইডেনের মোট ৬ হলে সিট সংখ্যা কম থাকায় নিয়মতান্ত্রিকভাবে কম শিক্ষার্থী আবাসনের সুযোগ পায়। যেসব শিক্ষার্থী হলে থাকার সুযোগ পায় না তারা ক্ষমতাসীন নেত্রীদের ম্যানেজ করে হলে উঠেন। অভিযোগ রয়েছে, এর জন্য প্রথম পর্যায়ে ১৫-২০ হাজার টাকা ও প্রতি মাসে ২-৩ হাজার টাকা শিক্ষার্থীরা নেতাদের হাতে তুলে দেন।

বৈধ শিক্ষার্থীদের হলে কোন সমস্যা নেই। কলেজে আবেদনের প্রেক্ষিতে ভাইভা পরীক্ষা দিয়ে ব্যাংক ড্রাফটের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের আবাসন বৈধ হয়। কিন্তু যারা টাকা দিয়ে অবৈধভাবে হলে উঠেন তাদেরকে কেন্দ্র করেই বাধে বিপত্তি। এসব শিক্ষার্থী প্রতি মাসে টাকা না দিলেই নেতারা তাদেরকে মারধর করে। এসব ঘটনা কলেজ প্রশাসনের নাকের ডগায় ঘটে থাকে তাই এই বিষয়ে কলেজ প্রশাসন কোন বক্তব্য দেয়নি। এসব বিষয়ে জানার জন্য ইডেন কলেজ অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্যকে একাধিক ফোন-মেসেজ দিয়েও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। সূত্র জানায়, এসব ঘটনায় ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ইডেন কলেজ প্রশাসনথমথমে ক্যাম্পাস ॥ কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌসীকে রুম থেকে টেনে হিঁচড়ে বের ও নির্যাতন করে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক মোছাঃ রাজিয়া সুলতানা। পরে সহ-সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌসী ও তার কর্মীরা তামান্না জেসমিন রিভা ও রাজিয়া সুলতানাকে মারধর করে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেয়। তাদেরকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে তারা। কিন্তু ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসা শেষে তারা হলে আবারও ফিরে এসেছেন।

ournews24.com এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের পছন্দ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

সর্বশেষ খবর