মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের নিবন্ধনপ্রাপ্ত

spot_img
Homeধর্মবিশ্বনবির ভালোবাসায় হজরত মুসআবের ত্যাগ

বিশ্বনবির ভালোবাসায় হজরত মুসআবের ত্যাগ

হজরত মুসআব ইবনে ওমাইর রাদিয়াল্লাহু আনহু। তিনি ছিলেন বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অন্যতম নেতৃস্থানীয় সাহাবি। প্রিয় নবিকে ভালোবাসার দিক থেকে প্রথম সারির অন্যতম একজন ছিলেন তিনি। রাজকীয় জীবন ছেড়ে ইসলাম গ্রহণ করেন তিনি। অথচ ওহুদের যুদ্ধে শাহাদাতবরণকারী এ সাহাবির দাফনে ছিল পর্যাপ্ত কাফনের ব্যবস্থা।s

হজরত মুসআব ইবনে ওমরাইর রাদিয়াল্লাহু আনহু যখন (মুশরিক অবস্থায়) মক্কার একজন যুবক ছিলেন; তখন তিনি ছিলেন পোশাক-পরিচ্ছদে সর্বাপেক্ষা সুসজ্জিত এবং সর্বাধিক সৌন্দর্য সচেতন ব্যক্তি।

ইসলাম গ্রহণের আগে হজরত মুসাআব রাদিয়াল্লাহু আনহু যখন বহু মূল্যবান রেশমিবস্ত্র পরে উৎকৃষ্ট সুগন্ধি মেখে রাস্তায় বের হতেন তখন পুরো এলাকায় এক মনোমুগ্ধকর সুবাস ও সৌরভ ছড়িয়ে পড়তো।

ইসলাম গ্রহণ
হজরত মুসআব ইবনে ওমরাই রাদিয়াল্লাহু আনহু রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর সঙ্গে সাক্ষাত করলেন এবং রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর পয়গাম তাঁর হৃদয়ের গভীরে প্রবেশ করল। বিশ্বনবির সাক্ষাতে তাঁর জীবন আমূল বদলে গেল। তিনি ইসলামের ছায়ায় আশ্রয় গ্রহণ করলেন।

ইসলাম গ্রহণ করার ফলে তাঁর স্নেহময়ী মুশরিক জননী তাঁকে ঘৃণা করতে শুরু করল। শুধু ঘৃণাই নয়, তাঁর উপর শুরু হয়ে গেল চরম শাস্তি ও নির্যাতন। তিনি হয়ে গেলেন ধনাঢ্য থেকে ছিন্ন-মলিন বস্ত্র পরিহিত এক হতদরিদ্র ব্যক্তি।

একদিন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁকে দেখলেন। দেখলেন, পুরাতন চামড়ার তালি দেয়া শত চ্ছিন্ন-বস্ত্র তাঁর পরনে। তাঁকে দেখলেন, কী কঠিন দুঃসহ জীবনই তাঁকে বরণ করে নিতে হয়েছে।

বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, ‘কয়েক বছর আগে আমি মক্কাতে এই যুবককে দেখেছি, তখন তার চাইতে সুদর্শন ও সৌন্দর্যবিলাসী ও উত্তম পোশাকে পরিচ্ছদশোভিত আর কেউ ছিল না। আর আজ শুধু আল্লাহ ও তাঁর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে ভালোবাসতে গিয়ে সে তার জীবনের সব আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্যকে কুরবানি করে দিয়েছে।’

মদিনায় শিক্ষকতা
প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ভালোবাসার পাত্র হজরত মুসআব রাদিয়াল্লাহু আনহু ছিলেন মদীনার আনসারদের জন্য নিয়োগপ্রাপ্ত প্রথম শিক্ষক। বদর যুদ্ধে মুহাজিরদের পক্ষ থেকে পতাকাবাহী ব্যক্তি।

ইন্তেকাল
মক্কার এ ধনী সাহাবি যখন ওহুদ যুদ্ধে শাহাদাত বরণ করেন তখন তাঁর কাফনের জন্য প্রয়োজনীয় কাপড়ও ছিল না। কাপড়ের অভাবে ঘাস দিয়ে তাঁর শরীরের নিম্নাংশ ঢেকে দেয়া হয়েছিল।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার এক প্রিয় সাহাবি মুসআব রাদিয়াল্লাহু আনহুর মৃত দেহের কাছে দাঁড়িয়ে এই আয়াত তেলাওয়াত করলেন-
‘ঈমানদারদের মধ্যে কেউ কেউ আছে, যারা আল্লাহর কাছে তাদের কৃত অঙ্গীকার পরিপূর্ণরূপে পালন করেছে।’ (সুরা আহযাব : আয়াত ২৩)

প্রিয় নবির ভালোবাসায় রাজকীয় জীবন ছেড়ে ছিন্ন বস্ত্র গ্রহণকারী সাহাবি ছিলেন হজরত মুসআব ইবনে ওমাইর। যার কাফনের জন্য পাওয়া যায়নি পর্যাপ্ত কাপড়। এ ছিল বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ভালোবাসা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ভালোবাসা লাভে তার সুন্নাতের উপর যথাযথ আমল করার ও তা কাজে বাস্তবায়ন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

আওয়ারনিউজটোয়েন্টিফোর.কম এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের পছন্দ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

সর্বশেষ খবর