৮ ঘণ্টা পর ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল

27

টানা ৮ ঘণ্টা জনদুর্ভোগের পর অবশেষে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল শুরু হয়েছে। বুধবার বেলা ২টার দিকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড থেকে শ্রমিকরা সরে যেতে শুরু করলে এ যান চলাচল শুরু হয়।

অবরোধকারীরা জানান, তারা তাদের দাবির প্রতি অবিচল। মন্ত্রীদের সঙ্গে শ্রমিক নেতাদের বৈঠকের  কারণে সাময়িকভাবে অবরোধ প্রত্যাহার করা হলেও দাবি না মানলে প্রয়োজনে আবারও অবরোধ করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তারা।

জানা গেছে, নতুন সড়ক পরিবহন আইন স্থগিত রাখাসহ ৯ দফা দাবিতে বুধবার সকাল ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি ডাকে বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। ওই কর্মবিরতিতে সংহতি প্রকাশ করে সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ ছিল।

পরিবহন শ্রমিকরা বলেন, ‘আমরা গলায় ফাঁসি নিয়ে পরিবহন চালাব না। কারণ কেউ ইচ্ছা করে দুর্ঘটনা ঘটায় না। তারপরও কঠোর শাস্তির বিধান করেছে। আবার লাইসেন্স, গাড়ির কাগজসহ বিভিন্ন কিছুর জন্য হাজার গুণ জরিমানা ধার্য করেছে। আমরা সারা মাসে ২৫ হাজার টাকা আয় করতে পারি না। অথচ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হলে গাড়িসহ সংসারের জিনিসপত্র বিক্রি করতে হবে। এই ধরনের ঝুঁকি নিয়ে আমরা গাড়ি চালাতে পারব না।

এর আগে, বুধবার সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী সব পরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়। পাশাপাশি শ্রমিকরা ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের সাইনবোর্ড এলাকায় এলোপাথাড়ি যানবাহন রেখে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। ফলে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেও যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে লাখ লাখ মানুষকে চরম ভোগান্তি আর দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। বাধ্য হয়ে অনেকে পায়ে হেঁটে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here