সেই অপু যদি আবার ফিরে আসে ,“ছেলের হাত ধরে?

195

বিনোদন ডেস্কঃ আমাদের সেই ছোট্ট্র  অপুকে মনে আছে তো বটেই! অপু, অর্থাৎ অপূর্ব। আপনি বাঙালি ? তাহলে নিশ্হচয় আপনারমনে পড়ছে! নামটা শুনলেই হয়তো মনে পড়বে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মুখ। কারণ বড়পর্দায় সৌমিত্রকে ‘অপু’ হিসেবে চিনিয়েছিলেন স্বয়ং সত্যজিৎ রায়। সেই অপু যদি আবার ফিরে আসে? ফিরে আসে ছেলের হাত ধরেই?

ঠিক এই ভাবনা থেকেই ছবি তৈরি করছেন পরিচালক শুভ্রজিৎ মিত্র। ছবির নাম ‘অভিযাত্রিক’। ৬০ বছর পর ফিরছে অপু।

বনা কী ভাবে এল? শুভ্রজিৎ বললেন, ‘‘সিনেমার ছাত্র বা দর্শক হিসেবে অপুর জার্নি সব সময় ফ্যাসিনেট করেছে। বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘অপরাজিত’ উপন্যাসের ৬০ শতাংশ নিয়ে দু’টো ছবি হয়েছে। কিন্তু অপুর ছেলে অর্থাত্ কাজলের সঙ্গে জার্নিটা বাকি। এটা আমাকে ভাবাত। অপরাজিত উপন্যাসের শেষ ৪০ শতাংশ নিয়ে আমার ছবি।’

১৯৫৯-এ অপুর শেষ ছবি মুক্তি পেয়েছিল। ছেলেকে কাঁধে তুলে বেরিয়ে গিয়েছিল সে। ফিরছে সেই অপু। ছেলের হাত ধরে। ঠিক ৬০ বছর পর, এই ২০১৯-এ। গরম, বর্ষা এবং শরত্— এই তিন ঋতুকে ছবিতে রাখতে চান শুভ্রজিত্। সেই মতোই হবে শুটিং। সব কিছু ঠিক থাকলে ২০১৯-এর শেষেই মুক্তি পাবে এই ছবি।

‘অপু’র সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে স্বয়ং সত্যজিত্ রায়ের নাম। তাই এই ছবি করতে গিয়ে কতটা টেনশনে শুভ্রজিত্? পরিচালক মনে করিয়ে দিলেন, শুধু সত্যজিত্ নন। রবিশঙ্কর, সুব্রত মিত্রর মতো বহু কিংবদন্তি জড়িয়ে ছিলেন ওই ছবির সঙ্গে। ‘‘নিজের দক্ষতাতে বিশ্বাস রেখে সততা যদি বজায় রাখা যায়, সেটা কিন্তু বড়পর্দায় বোঝা যায়’’ আত্মবিশ্বাসী পরিচালক।

বাংলায় তৈরি হওয়া আন্তর্জাতিক এই ছবির পরিবেশনার দায়িত্বে রয়েছেন মধুর ভাণ্ডারকর। তবে কে কোন চরিত্রে অভিনয় করছেন বা ক্যামেরার পিছনে কোন টিম কাজ করছে, তা এখনই বলতে চান না শুভ্রজিৎ। শুধু হেসে বললেন, ‘‘আমাদের ইন্টারন্যাশনাল কাস্ট অ্যান্ড ক্রু। শুধু এটুকু বলব, কাস্টের সকলেই বাংলাভাষী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here