শাপলা চত্বরের ভিডিও পোস্ট: ইমরান খানের সমালোচনায় জাতিসংঘ দূত

11

ভারতীয় পুলিশের অত্যাচার প্রমাণ করতে ২০১৩ সালের ৫ মে’র ঢাকার শাপলা চত্বরের ভিডিও পোস্ট করায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কড়া সমালোচনা করেছেন জাতিসংঘের ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সায়েদ আকবারউদ্দিন।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আকবারউদ্দিন বলেন, ‘পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বাংলাদেশের একটি পুরনো ভিডিও টুইট করে ‘উত্তর প্রদেশের ভারতের পুলিশের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা’ বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন।’

ইমরানের সমালোচনা করে শুক্রবার এক টুইটবার্তায় তিনি আরও বলেন, ‘অপরাধীদের পুনরাবৃত্তি করছেন। পুরনো অভ্যাস দূর করা কঠিন।’

বিতর্কিত ও ধর্মভিত্তিক নাগরিকত্ব আইনকে ঘিরে ভারতীয় পুলিশের অত্যাচার প্রমাণ করতে শুক্রবার সন্ধ্যায় নিজের টুইটার থেকে বাংলাদেশের একটি ভিডিও টুইট করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

পরে সমালোচনার মুখে সেই ভিডিওটি সরিয়ে ফেলেন তিনি।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারে এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সাত বছরের পুরনো বাংলাদেশের একটি ভিডিওকে ভারতের বলে দাবি করে প্রতিবেশী রাষ্ট্রকে অস্বস্তিতে ফেলতে চেয়েছেন।

ইমরানের টুইট করা ওই ভিডিওটি আসলে ২০১৩ সালের ৫ মে’র। ওইদিন হেফাজতে ইসলামের ঢাকা অবরোধ এবং শাপলা চত্বরে অবস্থান নেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সহিংসতা হয়েছিল।

ভিডিওটি পোস্ট করে ইমরান দাবি করেন, যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে এ ভাবেই মুসলিমদের ওপর অত্যাচার চালাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। এই ঘটনাটি মুসলিমদের দেশছাড়া করতে নরেন্দ্র মোদি সরকারের ভারতীয় পুলিশের হামলার অঙ্গ।

টুইটারে ওই ভিডিওটি শেয়ার করামাত্র তা হোয়াট্‌সঅ্যাপ এবং ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তবে কিছুক্ষণ পরই ধরা পড়ে ভিডিওটি বাংলাদেশের র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব) সদস্যদের।

এরপর প্রবল ট্রোলের শিকার হয়ে পোস্টের দুঘণ্টার মধ্যেই ওই টুইট সরিয়ে দেয়া হয় পাক প্রধানমন্ত্রীর টুইটার থেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here