বিদ্যুৎ বিভ্রাটে মধ্যরাতে ইবির উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও

42

রাজ্জাক মাহমুদ রাজ কুষ্টিয়া থেকে : গতকয়েকদিন লাগাতার বিদ্যুৎ বিভ্রাটে অতিষ্ট হয়ে মধ্যরাতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) উপাচার্য অধ্যাপক হারুন উর রশিদ আসকারীর বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ করেছেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার রাত পৌনে ১১টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী সেখানে অবস্থান নিয়ে বিদ্যুৎসহ বিভিন্ন দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা ডাইনিং, আবাসন, পরিবহন সমস্যার কথাও তুলে ধরেন। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মনের পদত্যাগ দাবি করেন শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনা¯’লে মার্কেটিং বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. জাকারিয়া রহমান, প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি অধ্যাপক ড. আকরাম হোসাইন মজুমদার, লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. আছাদুজ্জামান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. তালুকদার মো. লোকমান হাকিম উপস্থিত হন।

এসময় উপস্থিত শিক্ষকরা এ সমস্যা নিরসনে শিক্ষার্থীদের দাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী বরাবর লিখিত দিতে বলেন। শিক্ষার্থীরা পরে রাত ১২টার দিকে হলে ফিরে যান। এবং শনিবারের মধ্যে সমস্যার সমাধান না করলে কঠোর আন্দোলনের হুমকিও দেন। জানা যায়, শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টায় বিদ্যুৎ গিয়ে টানা পাঁচ ঘণ্টা পর রাত ১২টায় বিদ্যুৎ আসে।

আবাসিক হলে শিক্ষার্থীদের কক্ষে জেনারেটরের ব্যবসা না থাকায় সন্ধ্যা থেকেই অন্ধকারের মধ্যে কাটাতে হয় শিক্ষার্থীদের। বেশ কয়েকটি বিভাগে আজ শনিবার কোর্স ফাইনাল পরীক্ষা থাকায় বিপাকে পড়েন তারা। ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে রাতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করেন। শিক্ষার্থীরা জানান, শিক্ষাজীবনের পরীক্ষার আগের রাতে প্রস্ততিটাই আসল। অথচ সন্ধ্যা থেকে একবারের জন্যও পড়ার টেবিলে বসতে পারিনি।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে ক্যাম্পাসে বিদ্যুৎ বিভ্রাট, ডাইনিং ও পরিবহন সমস্যা চলে আসছে। প্রশাসনকে জানানোর পরও এর কোনো প্রতিকার হচ্ছে না। এ অচল অবস্থা চলতে থাকলে ক্যাম্পাস আন্তর্জাতিকীকরণের পথ হারাবে। এবিষয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুল বলেন, কুষ্টিয়ার বটতৈল এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের  ট্রান্সফরমার পুড়ে যায়। সেটা ঠিক করতে একটু সময়ও লেগে যায়। ফলে সন্ধ্যার পর থেকেই বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়েছে।

মতামত জানান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here