নিখোঁজ পর্যটকের হাত মিলল হাঙরের পেটে

12

সাপ্তাহিক ছুটিতে ঘুরতে বেরিয়েছিলেন গিয়েছিলেন দম্পতি। স্ত্রীকে হোটেলে রেখে স্বল্প সময়ের জন্য সাঁতার কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হন স্বামী। সেই থেকে হন্যে হয়ে চলছে খোঁজ।

বুধবার খোঁজ মিলল বটে, কিন্তু নিখোঁজ ব্যক্তির নয়। তার ছিঁড়ে নেওয়া হাত মিলল হাঙরের পেটে। আঙুলের বিয়ের আংটি দেখে স্বামীর হাত শনাক্ত করলেন স্ত্রী! তবে কি হাঙরের পেটেই গিয়েছেন স্বামী? নাকি তাঁর হাত ছিঁড়ে নিয়েছে হাঙর? এ প্রশ্নের জবাব এখনও স্ত্রীর অজানা।

স্কটিশ এই পর্যটককে শেষ দেখা গিয়েছিল ফরাসি রিইউনিয়ন দ্বীপে। মাদাগাস্করের কাছে এই সমুদ্রসৈকতে সাঁতার কাটছিলেন ৪৪ বছরের ওই ব্যক্তি। সম্প্রতি সেই সৈকতের কাছ থেকেই ধরা পড়েছে একটি টাইগার শার্ক, আর তার পেট থেকে উদ্ধার হয়েছে ছেঁড়া হাত!

স্থানীয় বাসিন্দা এরিক কোয়েলকিউজেউয়ের কথায়, ‘সেন্ট গিলসে স্ত্রীকে নিয়ে ঘুরতে এসেছিলেন ওই ব্যক্তি। উনি যেখানে সাঁতার কাটতে নেমেছিলেন, সে জায়গাটা প্রবাল প্রাচীরে ঘেরা। এর মধ্যে খুব সরু একটা অংশ দিয়ে গভীর সমুদ্রে যাওয়া যায়, কিন্তু অংশটা মোটামুটি নিরাপদ বলেই জনতাম। অনেকক্ষণ খোঁজ না পেয়ে তার স্ত্রী সমুদ্রতটে আসেন। পাগলের মতো কাঁদছিলেন ওই নারী। হেলিকপ্টার, বিমান, নৌকা, ডুবুরি নামিয়েও খোঁজ মেলেনি। এর কয়েকদিন পর গবেষণার প্রয়োজনে এখান থেকে বেশ কয়েকটি হাঙর ধরা হয়। নিখোঁজ ব্যক্তির হাত মিললেও কী ঘটেছে, তা স্পষ্ট নয়।’

এরিক জানালেন, এই দ্বীপের পশ্চিম উপকূলে বেশ কিছু জায়গায় সাঁতার কাটার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে পোস্টার রয়েছে, কিন্তু অনেকেই তা মানে না। রিইউনিয়ন দ্বীপে সাম্প্রতিক সময়ে হাঙরের একাধিক হামলাও মানুষকে সচেতন করতে পারেনি। যে লেগুনের সামনে থেকে ব্যক্তি নিখোঁজ হন, তার ৭ কিলোমিটার দূর থেকে ধরা হয়েছে হাঙরটিকে।

চলতি বছরে রিইউনিয়ন দ্বীপে এখনও অবধি হাঙরের শিকার হয়েছেন দু’জন। এই দ্বীপের সব সমুদ্রতটে সাঁতার এবং ওয়াটার স্পোর্টস নিষিদ্ধ করেছিল স্থানীয় প্রশাসন। কিন্তু ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমান্যুয়েল মাক্রঁ গত মাসে জানান, ২০২২-এর মধ্যে ফের ওয়াটার-স্পোর্টস চালু করতে চান। কিন্তু সেটা কতটা নিরাপদ হবে, প্রশ্ন থাকছেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here