নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হামলায় চার বাংলাদেশী নিহত:বাংলাদেশ দূতাবাস

16

আন্তর্জাতিক সংবাদ: নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে বন্দুকধারীর হামলায় এখনো পর্যন্ত চারজন বাংলাদেশী নিহত হয়েছেন বলে সেখানে বাংলাদেশের দূতাবাসের কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেনদূতাবাসের অনারারি কনসাল শফিকুর রহমান ভুঁইয়া বিবিসি বাংলাকে দুজনের কথা আগেই জানিয়েছেন। তবে আজ আরও দুজনের কথা জানিয়েছে নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ।

কী তাদের পরিচয়, তারা কী করতেন, বাংলাদেশে কোথায় তাদের বাড়ি আর কিভাবে তাদের স্মরণ করছেন স্বজনেরা?

হোসনে আরা ফরিদ: সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার লক্ষিপাশা ইউনিয়নের, জাঙ্গাঁলহাটা গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন হোসনে আরা ফরিদ। বয়স ৪৫ বছরের মতো, বলছিলেন তার ভাগ্নে দেলোয়ার হোসেন। তবে তারা একই সাথে বড় হয়েছেন কারণ বয়স তাদের কাছাকাছি দেলোয়ার হোসেন বলছিলেন, ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশে ছিলেন।

সেবছর বিয়ের পরই তিনি স্বামীর সাথে নিউজিল্যান্ডে চলে যান। এরপর থেকে সেখানেই থাকতেন।

স্বামী ফরিদউদ্দিন বেশ কয়েক বছর আগে একটি দুর্ঘটনায় দুই পা হারিয়েছেন। এরপর থেকেই তিনি হুইলচেয়ার ব্যবহার করেন। হামলার সময় তারা দুজনেই আল-নুর মসজিদে ছিলেন। নিউজিল্যান্ডেই তাদের একটি মেয়ে হয়েছে। যার বয়স এখন ১৪ বছর। দেলোয়ার হোসেন বলছেন, “আমাদের এক মামি নিউজিল্যান্ডে থাকেন।

তার কাছে খবরটি শোনার পর হাত পা অবশ হয়ে গিয়েছিলো। এটা কি শুনলাম? এই ধরনের কিছু শোনার জন্য কেউই প্রস্তুত ছিলাম না।” তিনি বলছেন, কিছুদিনের মধ্যেই তাদের দেশে বেড়াতে আসার কথা ছিল। দেলোয়ার হোসেন বলছেন, “উনি আমার থেকে দুই বছর বড় ছিলেন। ওনার সাথে আমার চমৎকার একটা সম্পর্ক ছিল। খুবই হাস্যজ্জল আর দিলখোলা মানুষ ছিলেন।”

মতামত জানান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here