নাসিরনগরে ঘুমন্ত ব্যক্তির মাথা নিয়ে থানায় হাজির

147
?

আকতার হোসেন ভুইয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে মন্দিরে ঘুমন্ত অবস্থায় লিটন ঘোষ নামের এক ব্যক্তির শরীর থেকে মাথা কেটে ব্যাগে ভরে থানায় গিয়ে হাজির হয়েছেন লঘু দাস নামে মানুষিক প্রতিবন্ধিব্যক্তি।আজ মঙ্গলবার দুপুরে নাসিরনগর উপজেলা সদরের গৌর মন্দিরে এই ঘটনা ঘটে।

ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিহত লিটন ঘোষ কুলিয়ারচরের মতিলাল ঘোষের ছেলে। পুলিশ জানায় লঘু দাস মানসিক রোগী। সে উপজেলা সদরের পশ্চিম পাড়ার মৃত পরমানন্দ দাসের ছেলে লঘু লাল দাস (৫০)।

নাসিরনগর থানার ওসি (তদন্ত) কবির হোসেন জানান,লিটন দাস বোনের বাড়িতে এসেছিলেন। দুপুরের খাবার খেয়ে পাশ্ববর্তী  গৌরমন্দিরের  নাট মন্দিরে ঘুমাচ্ছিল।

এসময় মানসিক প্রতিবন্ধী লঘু দাস একটি ধারালো দা দিয়ে লিটন ঘোষের মাথা শরীর থেকে দ্বিখন্ডিত করে ফেলেন। পরে সেই মাথা ব্যাগে ভরে নাসিরনগর থানায় হাজির হন লঘু দাস। এসময় মাথাসহ তাকে আটক করা হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ ঘটনার সংবাদ পেয়ে পুলিশ সুপার মোঃ আনোয়ার হোসেন খান(বার পিপিএম),অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মোঃ আলমগীর হোসেন,উপজেলা  চেয়ারম্যান ডাঃ রাফিউদ্দিন আহমেদ,উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল কবির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের  ১৫ জানুয়ারি এই লঘু দাসের হাতে খুন হন নাসিরনগর উপজেলা সদরের সাবেক ইউপি সদস্য ও স্থানীয় লোকনাথ মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক মতিলাল দাস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here