দু’দশক পরে ভিক্টোরিয়ায় রয়্যাল গ্যালারি

11

আয়োর ডেস্প্রাকঃ

প্রায় দু’দশক পরে ভ্রমণবিলাসীদের জন্য ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে খুলতে চলেছে রয়্যাল গ্যালারি। বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অয়েল পেন্টিং ছাড়াও এই গ্যালারিতে রয়েছে ১৮৫৭ সালের সিপাহী বিদ্রোহের বেশ কয়েকটি অয়েল পেন্টিং। রয়েছে ঐতিহাসিক এনফিল্ড রাইফেলের কার্তুজও। চলতি মাসের শেষের দিকে দর্শকদের জন্যে এই গ্যালারি খুলে দেওয়া হবে বলে জানাচ্ছেন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল কর্তৃপক্ষ।

শীতে মরশুমে পর্যটক বা সাধারণ মানুষের কাছে এখন ইকো পার্ক বা নিকোপার্কের আকর্ষণ থাকলেও ভিক্টোরিয়ার টান এখনও কিছু কম নয়। বড়দিন বা শীতের ছুটিতে এখনও বহু মানুষ ভিক্টোরিয়ায় ভিড় করেন। তবে ভিক্টোরিয়া চত্বরের বাগান খোলা থাকলেও সংস্কারের কারণে দর্শকেরা এত দিন ভিক্টোরিয়ার বেশ কয়েকটি গ্যালারিতে ঢুকতে পারতেন না। বিশেষত উত্তর দিকের তিনটি গ্যালারিতে এত দিন দর্শকদের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ ছিল । ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের কিউরেটর জয়ন্ত সেনগুপ্ত এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে এর আগে কখনও এ ভাবে সার্বিক সংস্কারের কাজ হয়নি। কিন্তু সংস্কারের জন্য তো আর পুরো ভিক্টোরিয়া বন্ধ রাখা যায় না। তাই এক একটি অংশ ধরে কাজ হচ্ছে।’’ তবে এই শীতেই উত্তর দিকের পোর্ট্রেট গ্যালারি-সহ মোট তিনটি গ্যালারি দর্শকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে বলে জানাচ্ছেন জয়ন্তবাবু। তাঁর কথায়, ‘‘এই শীতে আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু হতে চলেছে রয়্যাল গ্যালারি। কারণ ওই গ্যালারিতেই রয়েছে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অয়েল পেন্টিং।

বর্তমানে সাধারণ দর্শক শুধু দক্ষিণ দিকের গেট দিয়ে ভিক্টোরিয়া চত্বরে ঢুকে সেন্ট্রাল গ্যালারি ঘুরতে পারেন। দেখা যায় দরবার হল এবং ক্যালকাটা গ্যালারিও। তবে দো’তলায় অন্যতম আকর্ষণ বেঙ্গল স্কুল গ্যালারি বর্তমানে সংস্কারের জন্য বন্ধ আছে। সেখানেই রয়েছে অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং গগনেন্দ্রনাথ ঠাকুরের আঁকা বেশ কিছু দুর্লভ ছবি। ভিক্টোরিয়া কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছেন, ভবনের সংস্কার কাজ প্রায় শেষের পথে। গ্যালারিতে আলো, সিসিটিভি ও অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র লাগানো হয়ে গেলেই রয়্যাল গ্যালারির সঙ্গে খুলে যাবে এই বেঙ্গল স্কুল গ্যালারি। কিন্তু এখন যে গ্যালারিগুলি খোলা রয়েছে, তা সংস্কারের জন্যে বন্ধ হয়ে যাবে।

মতামত জানান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here