টাঙ্গাইলে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হত্যা মামলায় সাবেক এমপি রানাকে আদালতে হাজির

51

বাসাইল(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি: টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলার স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে কাশিমপুর কারাগার থেকে ফারুক হত্যা মামলার প্রধান আসামী সাবেক এমপি আমানুর রহমান খান রানাকে টাঙ্গাইল বিচারিক আদালতে আনা হয়। পরে ১১টা ২৭ মিনিটে টাঙ্গাইলের অতিরিক্তি জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক রাশেদ কবির এ চাঞ্চল্যকর মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরু করেন।

রাষ্ট্রপক্ষ এ মামলার সাক্ষী ডা. আশরাফ আলীকে সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য হাজিরা প্রদার করেন এবং আব্দুল আওয়াল নামের এক স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য শেষ করে। পরে মামলার বিবাদী পক্ষের আইনজীবীরা স্বাক্ষীর জেরা সমাপ্ত করেন। এই স্বাক্ষীসহ আদালতে মোট ১৬ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য সমাপ্ত হলো।

এরআগে ২০১৮ সালের ১১ ফেব্রæয়ারি বাদির স্বাক্ষ্য গ্রহণের মধ্যদিয়ে এ হত্যা মামলার স্বাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়।

অপরদিকে গতকাল উচ্চ আদালতে দুই যুবলীগ নেতার হত্যা মামলায় আসামী আমানুর রহমান খান রানাকে জামিন দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য ফারুক আহমেদের গুলিবিদ্ধ লাশ তার কলেজপাড়া এলাকার বাসার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনার তিনদিন পর তার স্ত্রী নাহার আহমেদ বাদি হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে মামলা দায়ের করেন। ২০১৬ সালের ৩ ফেব্রæয়ারি তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় গোয়েন্দা পুলিশ।

এই মামলায় সাবেক এমপি রানা ছাড়াও তার তিন ভাই টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান কাকন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পাসহ ১৪জন আসামী রয়েছে।

মতামত জানান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here