গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে রাহুল গান্সাধী’র সাক্ষাৎ

103

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ ‘ব্যক্তিগত’ কারণে বলেই এদিন টুইটারে জানিয়েছেন রাজীব পুত্র রাহুল। এদিকে, রাফাল বিতর্কের মধ্যেই মনোহর পারিকরের সঙ্গে রাহুল গান্ধীর সাক্ষাৎ ঘিরে ইতিমধ্যেই চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

রাফাল নিয়ে গতকাল সোমবারই টুইটারে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীকে একহাত নিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। ২৪ ঘণ্টা পরই সেই মনোহর পারিকরের সঙ্গেই দেখা করলেন কংগ্রেস সভাপতি। আজ মঙ্গলবার পারিকরের সঙ্গে বৈঠকও সেরেছেন রাহুল। গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ ‘ব্যক্তিগত’ কারণে বলেই এদিন টুইটারে জানিয়েছেন রাহুল গান্ধী।

এদিকে, রাফাল বিতর্কের মধ্যেই মনোহর পারিকরের সঙ্গে রাহুল গান্ধীর সাক্ষাৎ ঘিরে ইতিমধ্যেই চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

উল্লেখ্য, রাফালে ইস্যু নিয়ে গতকালই টুইটারে সরব হন রাহুল। সোমবার টুইটারে রাহুল লেখেন, ‘‘৩০ দিন হয়ে গেল রাফাল নিয়ে গোয়া অডিও টেপ সামনে এসেছে। কোনও এফআইআর হল না, কোনও তদন্ত হচ্ছে না। মন্ত্রীর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেই!

এ থেকেই স্পষ্ট যে, টেপটি খাঁটি। গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সেই গোপন ফাইল রয়েছে। সেজন্যই তিনি প্রধানমন্ত্রীর থেকে বেশি ক্ষমতাবান।’’

সোমবার এই মন্তব্য করার পরের দিনই গোয়া মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পর্রীকরের সঙ্গে রাহুলের এই সৌজন্য সাক্ষাৎ নিয়ে চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে রাজনৈতিক মহলে। এই মুহূর্তে সনিয়া গাঁধীর সঙ্গে গোয়ায় ছুটি কাটাতে পৌঁছেছেন রাহুল। যদিও সেই সফরের শুরুতেই গোয়া মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর প্রশ্ন উঠছে সেই ‘ছুটি’ নিয়েই। এর আগে গোয়ায় দলীয় বিধায়কদের সঙ্গেও একটি বৈঠক সারেন রাহুল।

২০১৭ সালে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে পর্যন্ত দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন মনোহর পর্রীকর। সেই সময়েই ফ্রান্সের কাছ থেকে ৩৬টি যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তি করেছিল কেন্দ্র। এখন অগ্ন্যাশয় বা প্যানক্রিয়াসে জটিলতার কারণে গুরুতর অসুস্থ তিনি। অত্যন্ত অসুস্থ হওয়ার জন্য তিনি প্রশাসনিক কাজকর্ম করতে পারছেন না, এই অভিযোগ তুলে তাঁর পদত্যাগের দাবিতেও সরব বিরোধীরা।

বিতর্কিত অডিয়ো টেপটিতে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে তিন ঘণ্টার মন্ত্রিসভার বৈঠকে কী আলোচনা হয়েছে, সেই কথা বলতে শোনা যায় গোয়ার বিজেপি নেতা এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বজিৎ রাণেকে। সেখানে তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘রাফাল যুদ্ধবিমান সংক্রান্ত সমস্ত নথিই আছে গোয়া মুখ্যমন্ত্রীর বেডরুমে।’ কংগ্রেসেরও দাবি, গোয়া মন্ত্রিসভার বৈঠকেও মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পর্রীকর দাবি করেছিলেন, ‘তাঁকে পদ থেকে সরানো সম্ভব নয়, কারণ রাফাল চুক্তির সমস্ত নথিই রাখা আছে তাঁর বাড়ির বেডরুমে।

এর আগে বিষয়টি নিয়ে সংসদের শীতকালীন অধিবেশনেও রাহুলের নেতৃত্বে তোলপাড় করেছিল কংগ্রেস। অন্য দিকে অডিয়ো টেপটির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল বিজেপি। গোয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বজিৎ রাণে অবশ্য জানিয়েছেন, ‘এই অডিয়ো টেপটি ভুয়ো। মুখ্যমন্ত্রী এবং মন্ত্রিসভার মধ্যে দূরত্ব তৈরি করার উদ্দেশ্যেই এই টেপটি বানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here