একুশের গান’ নতুন আঙ্গিকে পরিবেশন করা হবে

138

বিশেষ প্রতিবেদকঃ এই প্রথম নতুন আঙ্গিকে ‘এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব উইমেন’র ছাত্রীর সম্মিলিত ভাবে গাইবে গান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২১শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে। তারা ১৯৫২ সালে ভাষা অধিকার আদায়ের  দাবিতে মিছিলে শহীদ হয়েছিলেন,“সেই সূর্য সন্তান শহীদদের  সম্মান জানাতেই এ বছর ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটির কয়্যার-এর আয়োজন করে গ্রামীণফোন। চট্টগ্রামে অবস্থিত ‘এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব উইমেন’-এর বিভিন্ন ভাষাভাষী ছাত্রীরা তাদের সম্মিলিত কণ্ঠে সুর ঠিক রেখে গানটি পরিবেশন করবেন।

কয়্যারে সঙ্গীত নির্দেশনায় থাকবেন বাংলাদেশের কয়্যার গানে বিশেষ পারদর্শী আরমিন মুসা। ‘একুশের গান’ নতুন আঙ্গিকে পরিবেশন করা হবে, জানতে পেরে শুরু থেকেই তিনি পুরো আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত থাকবেন স্বতঃস্ফূর্তভাবে। আরমিন মুসা জানান, ‘একুশের গানের সাথে কয়্যার পরিবেশনার সাথে যুক্ত হতে পেরে আমি অনেক আনন্দিত। আর গর্বিত এই পরিবেশনের অংশ হতে পেরে।

আয়োজনটির বিশেষ আকর্ষণে প্রথমবারের মতো রয়েছেন ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটির সুরকার আলতাফ মাহমুদ-এর কন্যা শাওন মাহমুদ। এই আয়োজনে তার উপস্থিতি পুরো পরিবেশনাকে করে তুলবে আরও বেশি সম্মানের। আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো গানটি নতুন আঙ্গিকে গাওয়া হচ্ছে জানতে পেরে, তিনি ঢাকা থেকে ছুটে গিয়েছেন চট্টগ্রামে। তিনি বলেন, ‘আমার উপস্থিতিতে বাবাকে উৎসর্গ করে ‘একুশের গান’ এর আগে কখনই হয়নি। জীবনে প্রথম অভিজ্ঞতা হয়েছে তোমাদের সাথে। মাতৃভাষার গান মাতৃতুল্যদের কণ্ঠে দেশের গণ্ডি পেড়িয়ে বিশ্বময় ছড়িয়ে যাওয়ার এই প্রচেষ্টাকে আমি আন্তরিকভাবে সম্মান জানাই। আর আমি মনে করি, এখানে আমার মাধ্যমে বাবাকে সম্মান জানানো হয়েছে।’

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব উইমেন-এর ছাত্রীরা এবং আয়োজকগণসহ সারাদিনব্যাপী গানটি রেকর্ড ও চিত্রায়ন করা হবে। এই ইউনিভার্সিটিতে ১৬টি দেশের বিভিন্ন ভাষার ছাত্রীরা লেখাপড়া করছেন। তাদের সম্মিলিত কণ্ঠে ও ভাষায় একুশের গান একটি ভিন্ন মাত্রা পাবে বলে জানিয়েছেন গ্রামীণফোনের পৃষ্ঠপোষকগণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here