আসছে কিস ডে,কী কী কারণে চুমু খাওয়া হয় জানেন?

344

বিনোদন দুনিয়াঃ পৃথিবীর জন্মলগ্ন থেকে প্রতিদিনই কোন না কোন ডে বা দিবস আমাদের জীবন চলার পথে রয়েছে।আর এটাই স্বাভাবিক তাইতো ? তেমনি বিশ্বের প্রতিটি দেশে কাক্রমে পালন হচ্ছে কিস-ডে,বা চুম্বন দিবস। রোস ডে বা গোলাপ দিবস নিয়ে যে সপ্তাহের শুরু, প্রপোজ ডে বা প্রস্তাব দিবস, চকোলেট ডে বা চকোলেট দিবস, টেডি ডে,  প্রমিস ডে বা প্রতিজ্ঞা দিবস, হাগ ডে বা আলিঙ্গন দিবস পেরিয়ে আসে কিস ডে বা চুম্বন দিবস। সব শেষে ভ্যালেন্টাইন ডে।

বিশেষজ্ঞরা তাঁদের পর্যবেক্ষণে সাত ধরনের কাজে চুমুর ব্যবহার লক্ষ্য করেছেন-

(ক) বয়ঃসন্ধিকালের চুমু- কিশোর কিশোরীরা তাদের ভালবাসা প্রকাশে ইউরোপ বা আমেরিকায় চুমু খেয়ে থাকে। এটা কিছুটা খেলার ছলে।

(খ) সেক্স বা রোমান্সে চুমু- প্রেম বা বিবাহিত জীবনে সহবাসের আগে এই চুমু খাওয়া হয়।

(গ) উপাসন বা আনুষ্ঠানিক কাজে চুমু- প্রাচীন রোমান সমাজে আনুষ্ঠানিক কাজে চুমু ব্যবহার করা হত। যেমন যুদ্ধে যাওয়ার আগে তরবারিতে চুমু খাওয়া হত।

(ঘ) স্নেহের সম্পর্কে চুমু- পিতামাতা বা গুরুজনরা তাদের সন্তানদের ভালবাসা প্রকাশে চুমু খেয়ে থাকেন।

(ঙ) শান্তির জন্য চুমু- চার্চের উপাসনার কাজে শান্তি স্থাপনের উদেশে চুমু খাওয়ার রেওয়াজ অনেক দিনের।

(চ) সম্মান প্রদর্শনের জন্য চুমু- বিভিন্ন দেশের নেতারা পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের জন্য এই চুমুর ব্যবহার করতেন বা এখনও করে থাকেন।

(ছ) বন্ধুত্বের হাত বাড়াতে চুমু- ইউরোপ ও আমেরিকায় সামাজিক ভাবে বন্ধুত্বের বন্ধন দৃঢ় করতে এই চুমুর ব্যবহার হয়ে থাকে।

রোজ ডে-তে পার্টনারকে কোন রঙের গোলাপ কী কারণে দেওয়া হয় জানেন?

আসছে ভ্যালেন্টাইন উইক। প্রেমের সপ্তাহ। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সপ্তাহকে ভ্যালেন্টাইন উইক বলা হয়। সপ্তাহের শুরু ৭ ফেব্রুয়ারি রোজ ডে দিয়ে। এর পর ৮ ফেব্রুয়ারি প্রপোজ ডে, ৯ ফেব্রুয়ারি চকোলেট ডে, ১০ ফেব্রুয়ারি টেডি ডে, ১১ ফেব্রুয়ারি প্রমিজ ডে, ১২ ফেব্রুয়ারি হাগ ডে, ১৩ ফেব্রুয়ারি কিস ডে এবং সব শেষে ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন্স ডে। রোজ ডে-তে বিভিন্ন রঙের গোলাপের মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন ধরনের কার্যকারিতা উপভোগ করতে করতে পারেন। প্রেম ভালবাসার ক্ষেত্রে এই ফুলের রঙ আমাদের নিঃশব্দে অনেক কিছু বলে দেয়।

এই ফুলের রঙ আমাদের নিঃশব্দে অনেক কিছু বলে দেয়।

আসুন জেনে নেওয়া যাক আজ বিভিন্ন রঙের গোলাপ কী কী কাজে লাগে এবং তাদের ব্যবহার দ্বারা আমরা কী ভাবে লাভবান হতে পারি।

১। লাল গোলাপ-ঃ লাল গোলাপ হল প্রেমের প্রতীক। মনের ইচ্ছা, অভিলাষ অপরকে প্রকাশ করতে না পারলে তখন একটি ফুল প্রদান করে সহজেই তা প্রকাশ করতে পারেন। কাউকে মনে মনে ভালবাসলেন এবং মনে প্রাণে তাকে চাইলেন। যদি সেটা কোনও ভাবেই প্রকাশ করা না যায় তবে একটি লাল গোলাপ ফুল প্রদান করে অত্যন্ত সহজ ও সরল ভাষায় তাকে মনের ইচ্ছা জানাতে পারা যায়।

২। গোলাপী গোলাপ-ঃগোলাপী রঙের গোলাপ হল আনন্দের প্রতীক। একজন অপরজনের সঙ্গে যখন আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে চায় তখন এই রঙের গোলাপের বিশেষ মাহাত্ম্য থাকে। ভ্যালেন্টাইন সপ্তাহে প্রেমিক প্রেমিকা একে অপরকে দিতে পারে। এতে ভালবাসার মানুষের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস অটুট থাকে।

৩। হলুদ রঙের গোলাপ-ঃদীর্ঘ দিন ধরে প্রেমিক প্রেমিকার মধ্যে মনোমালিন্য চলছে। তৃতীয় কোনও ব্যক্তিকে নিয়ে ঝামেলার সৃষ্টি হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে আপনার ভালবাসার মানুষকে হলুদ গোলাপ দিন। এই হলুদ গোলাপ স্ত্রী যখন স্বামী বা প্রেমিকা যখন প্রেমিককে দেয় তখন এর মানে এইরূপ দাঁড়ায়, আমি একমাত্র তোমারই এবং তুমি একমাত্র আমারই। এবং তোমার আমার মধ্যে তৃতীয় কারও স্থান নেই।

৪।কমলা রঙের গোলাপ-ঃআপনি যদি আপনার ভালবাসার মানুষকে পাগলের মতো ভালবাসেন, তা হলে আপনার এই ভালবাসাকে দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য সঙ্গীকে কমলা গোলাপ দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here