আগামীকাল মেলায় শেষ, কেনাকাটার ধুম

67

বিশেষ প্রতিবেদকঃ রাত পহালেই আগামীকাল মেলা শেষ হতে যাচ্ছে! আজ মেলায় উপচে পড়া মানুষের ভীড়ে জমজমাট হয়ে উঠেছে। ছুটির দিনে যেনো নগর জীবনের মানুষেরা প্রাণের স্পন্দন ফিরে পেয়েছে।তরুণ-তরুণী,শিশু-বৃদ্ধ,বৃদ্ধা বিশেষ করে নারীদের পদচারনাই চোখের পড়ার মতন ছিলো। বানিজ্য মেলা আজ বেশ বানিজ্যও হচ্ছে বটে! কোথাও যেনো খালি নেই,খাবারের দোকান থেকে কাপড়, আসবাবপত্র থেকে কসমেটিকস সব ধরনের দোকানেই চলছে কেনাকাটার ধুম। আজ  শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ঘুরে এমনই  চিত্র দেখা গেছে সর্বত্রই।

মাসব্যাপী ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার শুক্রবারই শেষ হওয়ার কথা থাকলেও আজ শেষ হচ্ছেনা। আলোচনা সাপেক্ষে মেলা কর্তৃপক্ষ আরও একদিন বাড়িয়ে তা আগামীকাল শনিবার পর্যন্ত বর্ধিত করেছেন।আর এই সুযোগে শেষ বেলায় এসে মেলার শেষ মুহূর্তে  মানুষ তার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কিনছেন দর্শনার্থীরা।

আজ মেলা ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই ঘোরাঘুরির পাশাপাশি মেলার সব ধরনের দোকানেই রয়েছে ভিড়। তবে দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই সেই ভিড় আরও বাড়ছে। দোকানিরা আশা করছেন, সন্ধ্যার আগে আগে বিক্রি আরও বাড়বে।

মেলা থেকে মগ, প্লেট আর কাপ কেনেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আলাল হোসেন। তিনি বলেন, ‘মেলা শেষ হয়ে যাচ্ছে বলেই আজ মেলায় আসা। পারিবারিক প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনলাম। আরও কিছু বাকি আছে, সেগুলোও কিনব দেখছি।

মেলা চলাকালীন সময়ে যে ভাবে পূণ্য সামগ্রীর মুল্য ছিলো তা শেষ দিকে এসেই মনে হচ্ছে অন্যদিনের চেয়ে  মেলার স্টলগুলোও তুলনামূলক কম দামে পণ্য বিক্রি করেছেন। কেউ কেউ আগের তুলনায় বেশি মূল্য ছাড় দিচ্ছেন।

মেলার শুরুতে ইটালিয়ানো তাদের নির্দিষ্ট কিছু ক্রোকারিজ পণ্যে ২০ শতাংশ ছাড় দিয়ে সামগ্রী বিক্রি করতে দেখা গিয়েছে। এখন সেগুলো ৪০ শতাংশ ছাড়ে বিক্রি হচ্ছে। ইটালিয়নোর সেলস এক্সিকিউটিভ ইমন বলেন, ‘আমরা অল্প লাভ রেখে পণ্য ছেড়ে দেয়ায় বেচাকেনাও বেশ ভালো হচ্ছে।’

মেলায় ৫০ শতাংশ ছাড়ে জুতা বিক্রি করছে র‌্যাভেঞ্জ প্যাভিলিয়ন। এর ম্যানেজার সালাউদ্দিন বলেন, ‘বৃহস্পতিবার থেকে আজ  শুক্রবার বেচাকেনা খুব ভালো। আশা করছি, মেলার শেষ দিন শনিবারও ভালো বেচাকেনা হবে।

এসএমই ফাউন্ডেশন প্যাভিলিয়নের ব্যাগ বাজার স্টলের বিক্রেতা রাকিবুল হাসান বলেন, ‘সন্ধ্যার আগে আগে বেচাকেনা আরও বেড়ে যাবে।’ উল্লেখ্য, এবারের মেলায় প্যাভিলিয়ন, মিনি-প্যাভিলিয়ন, রেস্তোরাঁ ও স্টলের মোট সংখ্যা ৬০৫টি। এর মধ্যে প্যাভিলিয়ন ১১০টি, মিনি-প্যাভিলিয়ন ৮৩টি ও রেস্তোরাঁসহ অন্যান্য স্টল রয়েছে ৪১২টি। বাংলাদেশ ছাড়াও ২৫টি দেশের ৫২ প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিয়েছে।একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে ৯ জানুয়ারি শুরু হয়ে এই মেলা শেষ হবে আগামীকাল শনিবার ৯ ফেব্রুয়ারি।

মতামত জানান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here