ব্রাজিলীয় তারকা নেইমার দ্য সিলভার স্বীকারোক্তি। আর তা করে ১০ নম্বর জার্সিধারী এখন প্রবল সমালোচিত। বিজ্ঞাপনে নেমার জানিয়েছেন, কেন তিনি মাঠে গড়াগড়ি খান। সেই সঙ্গে ব্রাজিলীয় এ-ও জানিয়েছেন, মাঠে তাকে অন্যায় ফাউলেরও শিকার হতে হয়। ৯০ সেকেন্ডের সেই ভিডিও থেকে নেইমারের আয় ২ লাখ পাউন্ড।

সেই ভিডিওয় নেইমার খুব সংক্ষেপে নিজের কথাও জানিয়েছেন— হাঁটুতে বুটের আঘাত। মেরুদণ্ডে লাথি। পা মাড়ানো। এই ভিডিওয় আত্মপক্ষ সমর্থনের চেষ্টা করেছেন নেইমার।

মাঠে নেমার কেন ডাইভ দেন, তার কারণও ব্যাখ্যা করেছেন ব্রাজিলীয় তারকা। নেইমার তার ভক্তদের উদ্দেশে জানিয়েছেন, ‘‘আপনারা হয়তো মনে করেন আমি অভিনয় করি। মাঝে মাঝে আমি সেটা করি ঠিকই। মাঠে আমাকে ভুগতেও হয়। কীসের মধ্যে দিয়ে আমাকে যেতে হয় মাঠের বাইরে থেকে আপনাদের পক্ষে তা বোঝা সম্ভব নয়।’’

এবারের বিশ্বকাপে নেইমারকে নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। তিনি নাকি ইচ্ছাকৃতভাবে মাঠে গড়াগড়ি খান। এর জন্য তাকে কটাক্ষও সহ্য করতে হয়েছে। নেমারকে নিয়ে যে এত কালি খরচ হয়েছে, তা নিয়ে কোথাও মুখ খুলতে শোনা যায়নি ব্রাজিলীয় তারকাকে। বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার পরেও নিজের অবস্থান পরিষ্কার করার কোনো উদ্যোগও নেননি তিতের দলের ১০ নম্বর জার্সিধারী। ভিডিওর মাধ্যমে ব্যাখ্যা দিয়েছেন নেইমার। যার জন্য নেমারকে এখন সমালোচনা সহ্য করতে হচ্ছে। নিজেকে বাঁচাতে গিয়ে নেমারের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে।

 আরো পড়ুন : নেইমার পাকা অভিনেতা নাকি ফাউলের শিকার?

ব্রাজিলের সুপারস্টার নেইমারকে নিয়ে এবারের বিশ্বকাপে বিতর্ক কম হয়নি। প্রতিদিনই নানা কারণে সংবাদ হয়েছেন তিনি। কিন্তু ইউরোপীয় গণমাধ্যমের বিচারে, নেইমার হচ্ছেন আসলে পাকা অভিনেতা, খেলার মাঠে পড়ে গিয়ে মারাত্মক চোট পাওয়ার অভিনয়ে তার জুড়ি মেলা নাকি ভার। ব্রাজিল এখন ছিটকে পড়েছে বিশ্বকাপ থেকে। কিন্তু তাই বলে নেইমারকে নিয়ে আলোচনা থেমে নেই।

ইন্টারনেটে তাকে নিয়ে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের শেষ নেই। এরকম একটি বিদ্রুপাত্মক পোস্ট এক কথিত ফুটবল স্কুল নিয়ে, যেখানে নাকি ছেলেদের ডাইভ দিয়ে পড়ে গিয়ে কিভাবে চিৎকার করতে হবে তার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়!