চাঁদ ক্রমেই পৃথিবী থেকে দূরে সরে যাচ্ছে। যে কারণে পৃথিবীর আহ্নিক গতিতে পরিবর্তন আসছে। তাই অদূর ভবিষ্যতে ২৪ ঘন্টায় নয়, ২৫ ঘণ্টায়ই হবে এক দিন। এমনটাই জানালেন যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন-ম্যাডিসন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. স্টিফেন মায়ারস।
ড. মায়ারসের সঙ্গে সহমত পোষন করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক অ্যালবার্তো শিলিনভেরনোও। সম্প্রতি তারা এ বিষয়ে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সে, যা ভাবিয়ে তুলেছে অন্য গবেষকদের।

ড. মায়ারস বলেন, পৃথিবী ও চাঁদের সম্পর্ক নিয়ে শিলিনভেরনোর সঙ্গে আমি অনেকদিন কাজ করেছি। প্রায় ১৪০ কোটি বছর আগের পাথরের নমুনা পরীক্ষা করে আমরা চেষ্টা করেছি প্রাচীন ভৌগোলিক সময়সীমা সম্পর্কে ধারণা নিতে। আমরা নিশ্চিত, চাঁদ একসময় পৃথিবীর আরও অনেক কাছে ছিল এবং এক দিনের সময় ছিল বর্তমানের চেয়ে কম। তিনি বলেন, বর্তমানে পৃথিবীর কেন্দ্র থেকে চাঁদের কেন্দ্রের দূরত্ব ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৩৯৯ কিলোমিটার। প্রতিবছর চাঁদ পৃথিবী থেকে ৩.৮২ সেন্টিমিটার দূরে সরে যাচ্ছে।

এদিকে ড. মায়ারসের এই বক্তব্য নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। অনেকেই বলছেন, সময় এক ঘণ্টা বাড়লে এক দিনে অনেক বেশি কাজ করা যাবে। প্রসঙ্গত, চাঁদের সঙ্গে দূরত্বের ওপর পৃথিবীর আহ্নিক গতি অনেকটা নির্ভরশীল। একটা সময় চাঁদ ছিল পৃথিবীর অনেক কাছে। তখন পৃথিবী নিজ অক্ষে একবার পাক খেতে সময় নিত প্রায় ১৮ ঘণ্টা ৪১ মিনিট। চাঁদ ক্রমেই দূরে সরে যাওয়ায় পৃথিবীর আহ্নিক গতিতে এসেছে পরিবর্তন। এখন ২৩ ঘণ্টা ৫৬ মিনিট ৪ সেকেন্ড অর্থাৎ প্রায় ২৪ ঘণ্টায় এক দিন।

সূত্র : এক্সপ্রেস ইউকে।