সৌদিতে স্বাধীনভাবে ব্যবসা করতে পারবে নারীরা

এখন থেকে স্বামী বা অন্য কোনো পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই স্বাধীনভাবে ব্যবসা করতে পারবেন সৌদি আরবের নারীরা। গত বৃহস্পতিবার সৌদি আরব সরকার এ ঘোষণা দেয়। এর মাধ্যমে সৌদি আরবে কয়েক দশক ধরে চলা কঠোর অভিভাবকত্ব ব্যবস্থায় বড় পরিবর্তন হলো।
দেশটির বাণিজ্য ও বিনিয়োগ মন্ত্রণালয় তাদের ওয়েবসাইটে জানায়, অভিভাবকের সম্মতি প্রমাণ করা ছাড়াই নারীরা এখন তাদের নিজস্ব ব্যবসা শুরু করবে এবং সরকারের ই-সেবা থেকে সুযোগ-সুবিধা নিতে পারবে।

সৌদি আরবের অভিভাবকত্ব নীতি অনুযায়ী, যেকোনো প্রশাসনিক কাজ, কোথাও ভ্রমণ অথবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে হলে স্বামী, বাবা বা ভাইয়ের অনুমতি প্রমাণ করতে হতো। সম্প্রতি সৌদি সরকার দেশটির বেসরকারি খাতকে প্রসারিত করার পাশাপাশি নারীদের কর্মসংস্থান বৃদ্ধিতে জোর দিচ্ছে।

সৌদির ৩২ বছর বয়সী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণ করতে এবং সৌদি যুবসমাজের জন্য একটি ‘মুক্ত ও স্বাধীন’ দেশ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি সরকার নারীদের ওপর আগের আরোপিত নানা নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে সৌদি নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়।

সৌদি আরবের পাবলিক প্রসিকিউটর কার্যালয় এই মাসে ঘোষণা করে, প্রথমবারের মতো তারা নারী তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগের কাজ শুরু করবে। এ ছাড়া দেশটির বিমানবন্দর এবং সীমান্তে ১৪০ জন নারীকে নিয়োগ করা হয়েছে। সৌদি সরকার জানায়, সৌদির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এক লাখ সাত হাজার নারী চাকরির আবেদন করেছেন।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ‘ভিশন ২০৩০’ নামে দেশটিতে একটি সংস্কারকাজ শুরু করেছেন। এর অংশ হিসেবে কর্মক্ষেত্রে সৌদি নারীদের অংশগ্রহণ ২২ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে এক-তৃতীয়াংশ করার পরিকল্পনা করেছে সরকার।