সুইজারল্যান্ড যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধিদল

অনলাইন রিপোর্টার॥ ফেড ও সুইফট কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক করতে সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের চার সদস্যের প্রতিনিধিদল। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের নেতৃত্বাধীন এ প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন-ব্যাংকের আইটি অপরারেশন্স এন্ড কমিউনিকেশন্স ডিপার্টমেন্টের মহাব্যবস্থাপক কাজী নাছির আহমেদ, একাউন্টস এন্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্টেরর মহাব্যবস্থাপক বদরুল হক খান ও বাংলাদেশ ফাইন্যান্সসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের উপ-পরিচালক আবদুল রব।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনায় ফেড নিউইয়র্ক ও বেলজিয়ামভিত্তিক সুইফটেরও দ্বায়িত্বে কিছু অবহেলা রয়েছে। রিজার্ভের অর্থ স্থানান্তরে সুইফটের বার্তা ব্যবহার করে যে ৩৫টি আদেশ পাঠানো হয়েছিল, তার মধ্যে ৩০টি আদেশ আটকে দেওয়া হয়েছিল। যদি ৩০টি আদেশ আটকানো সম্ভব হয়, তবে অপর পাঁচটি আদেশ কেন আটকানো গেল না?

অন্যদিকে সুইফট ও নিউইয়র্ক ফেড একাধিকবার বলেছে যে, তাদের কোনো দায় নেই। দুর্বলতা বাংলাদেশ ব্যাংকের।

মূলত এ সব বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে ৮ মে সুজারল্যান্ড যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধি দল। ১০ মে ত্রি-পক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা বলেন, নিউইয়র্ক ফেড ও সুইফটের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করতে গভর্নরের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি দল সুইজারল্যান্ড যাচ্ছেন। সেখানে ১০ মে একটি ত্রি-পক্ষীয় বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনা ফাঁস হওয়ার পর বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে রক্ষিত বাংলাদেশের রিজার্ভ থেকে মোট ১০১ মিলিয়ন বা ১০ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার চুরি হয়। অর্থ স্থানান্তরের পাঁচটি আদেশের মাধ্যমে এর মধ্যে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চলে যায় ফিলিপাইনে। আর বাকি ২ কোটি ডলার চলে যায় শ্রীলঙ্কায়।