অনলাইন ডেস্ক
বাংলা নববর্ষ। সে তো বাঙালির উৎসব। তবে কলকাতার বাঙালির এই উৎসবের সময়টা ভালো গেল না। একে তো বৃষ্টির বাগড়া; অন্যদিকে কলকাতা নাইট রাইডার্সের (কেকেআর) হার।
কেকেআর আইপিএলের দুটি ট্রফি ঘরে তুলেছে। আর এতে বড় ভূমিকা ছিলে তাদের সাবেক তিন খেলোয়ার সাকিব আল হাসান, মানিশ পান্ডে ও ইউসুফ পাঠানের। তিনজনই এবার খেলছেন হায়দরাবাদে। নিলামে কেকেআর তাদের ছেড়ে দিয়েছে।
এর আগে ইডেন গার্ডেনে জয় না পেলেও শনিবার রাতে ঠিকই নাইট ভক্তদের নববর্ষের আনন্দ মাটি করে দিয়েছে সাকিবের হায়দরাবাদ।
সাত বছর সাকিব খেলেছেন কলকাতার হয়ে। কম সময় তো আর না! বাংলাদেশের এই তারকা ক্রিকেটার কলকাতায় খেলায় এদেশের মানুষের কাছ কেকেআর যেন নিজেদের ক্লাবে পরিণত হয়েছিল। অথচ সেই সাকিবকে ছেড়ে দিয়েছে কেকেআর কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে কলকাতার পত্রিকাগুলো ধুয়ে দিচ্ছে নাইটদের। সাকিব শনিবার প্রথমবারের মতো তার পুরনো ক্লাবের বিপক্ষে খেললেন। মুখে কিছু না বলেলেও সাকিবের সব গরল যেন ব্যাটে-বলে এবং ফিল্ডিংয়ে ঠিকরে বেরুলো।

কলকাতার ম্যাচের আগে ভারতীয় একটি বার্তা সংস্থা কথা বলে সাকিবের সঙ্গে। জানতে চায়, কলকাতায় খেলা নিয়ে কোন আবেগ বা উচ্ছ্বাস আছে কিনা। কিন্তু সাকিব যেন পণ করেছিলেন, যা বলার মাঠেই বলবেন। বৃষ্টিস্নাত রাতে অলরাউন্ডার নৈপুণ্য দেখালেন সাকিব। বল হাতে চার ওভারে ২১ রানে ২ উইকেট। দুটি ক্যাচ এবং ব্যাট হাতে দলের প্রয়োজনে ২১ বলে ২৭ রান করেন তিনি।
এই ম্যাচ নিয়ে ক্রিকইনফো লিখেছে, ‘সাবেক নাইট রাইডার সাকিবের প্রতিনিধিত্বে কলকাতায় সানরাইজার্সের প্রথম জয়’। আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে, ‘কেকেআরের কাঁটা প্রাক্তন তিন নাইট’। এবেলা শিরোনাম করেছে, ‘বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে নাইট শিবিরে ধাক্কা দিলেন সেই সাকিবরা’।