সরিষাবাড়ী থেকে অপহৃত শিক্ষার্থী লিপি উদ্ধার, গ্রেফতার ২

রাজবাড়ী প্রতিনিধি :- সরিষাবাড়ী থেকে অপহরণ হওয়ার প্রায় ১৪ দিন পর অপহৃত শিক্ষার্থী লিপি খাতুন (১৪) কে উদ্ধার করেছে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশের সদস্যরা। গত ১৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে গাজীপুরের শ্রীপুর থানা এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় অপহরনের সহযোগিতাকারী সরিষাবাড়ী উপজেলার শ্যামের পাড়া গ্রামের সুলতানের ছেলে সাকিল (২১) ও রহমত আলীর ছেলে রাকিবুল ইসলাম আপেল (২৫) কে গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশ ও এজাহার সুত্রে জানা যায়, বাড়ির পাশে অপহরণকারীরা বসবাস করতো । এক পর্যায়ে তারা লিপিকে কৌশলে গত ০২সেপ্টেম্বর পবিত্র ঈদ উল-আযহার রাত্রিতে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে লিপি খাতুনের বাবা নহুবর অালী বাদী হয়ে ৫ জনের বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং-১৬ তারিখ-১২-০৯-২০১৭ ইং।
মামলার সূত্র ধরে, পুলিশ অপহরণকারীদের আটক করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে অপহরণকারীদের অবস্থান শ্রীপুর এলাকায় জানতে পেরে সরিষাবাড়ী থানার এসআই সাইফুলের নেতৃত্বে গত ১৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতেই গাজীপুরের শ্রীপুর উদ্দেশ্যে রওনা দেন এবং শনিবার রাত ১:১৫ ঘটিকায় পুলিশ শ্রীপুরের মাওনা চৌরাস্তা এলাকা থেকে শিক্ষার্থী লিপিকে উদ্ধার ও অপহরনের সহযোগিতা কারী সাকিল এবং আপেলকে গ্রেফতার করে। অপহরনকারী পুলিশের উপস্থিতি টের পয়ে পালিয়ে যায়।
উদ্ধারের পর শিক্ষার্থী তার বাবাকে দেখে বাবা বলে চিৎকার দিয়ে সজ্ঞা হারিয়ে ফেলে। গতকাল রবিবার ভিকটিম লিপি খাতুনের জবানবন্দি এবং গ্রেফতার কৃতদের বিজ্ঞ আদালত জামালপুর প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।
তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাইফুল ইসলাম জানান, শিক্ষার্থী লিপি খাতুনকে জবাবনন্দি দেওয়ার জন্য ও গ্রেফতারকৃত ২ আসামী সাকিল, আপেলকে বিজ্ঞ আদালত জামালপুর প্রেরণ করা হয়েছে।
সরিষাবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) তাহেরুল ইসলাম জানান, শিক্ষার্থী লিপি খাতুনকে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার মাওনা চৌরাস্তা এলাকা থেকে শনিবার রাত ১:১৫ মিনিটে উদ্ধার ও ২ জনকে গ্রেফতার করেছে সরিষাবাড়ী থানার এসআই সাইফুল । গ্রেফতারকৃতদের ৩ দিনের রিমান্ড চেয়ে বিজ্ঞ আদালত জামালপুর প্রেরণ করা হয়েছে।