শীতার্ত মানুষের হাতে ২৭ লাখ কম্বল পৌঁছে দিয়েছি : ত্রাণমন্ত্রী

0
14
print
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, আগে দেখা যেত অনেক প্রতিষ্ঠান দুর্গতদের সেবায় ঝাঁপিয়ে পড়তো। এবার কিন্তু লক্ষণটা এখনো দেখিনি। হয়তো তারা ভাবছে- শীত শুরু হয়ে যাবে, অনেকে হয়তো ভাবছে শীত নাও আসতে পারে। এ বছর যে এ ধরনের ঘটনা হবে সেজন্য অনেকেই প্রস্তুত ছিল না। আমরা প্রস্তুত ছিলাম বলেই প্রায় ২৭ লাখ কম্বল গ্রামের শীতার্ত মানুষের হাতে পৌঁছে দিয়েছি।

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে চলমান শৈত্যপ্রবাহ ও মানবিক সহায়তা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমরা (মন্ত্রণালয়) ২০টি টিম পাঠিয়ে দিয়েছি। আমরাও জেলাগুলো সফর করবো, আমরা বসে নেই, পাশে থাকবো। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিব শাহ কামাল মঙ্গলবার উত্তরবঙ্গে এবং আমি কাল চাঁদপুরে যাবো।

সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, সংবাদমাধ্যমে শীতে মারা যাওয়ার যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা সঠিক নয়। সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে আলাপ করে জেনেছি, একজন ছাত্রী ট্রমায় আক্রান্ত অবস্থায় মারা গেছে। বাকিরা মারা গেছেন বার্ধক্যজনিত কারণে। তাদের বয়স ৮০ বছরের বেশি।

ত্রাণমন্ত্রী বলেন, শীত যদিও সাময়িক কষ্ট। মানুষ যেন আর কষ্ট না পায় এর জন্য সরকারের ও মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যা যা করা দরকার আমরা করব। আমাদের মজুদ আছে- কম্বল বলেন, শুকনো খাবার বলেন, টাকা বলেন।

এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব শাহ কামালসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY