শিকলে বন্দি ২০ বছর!

কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি
২০ বছর ধরে ঘরের একটি কক্ষে শিকলে বাঁধা বন্দিজীবন কাটাচ্ছেন কালকিনি পৌর এলাকার চরলক্ষ্মী গ্রামের আ. রশিদ কুট্টি বেপারীর ছেলে রিপন বেপারী। অপরের ক্ষতি করতে পারে এমন আশঙ্কায় শিকলে বেঁধে তাকে আটকে রেখেছে পরিবার। কিন্তু এখন তিনি মুক্তি চান, চান স্বাভাবিক জীবন।

শিকলে বাঁধা থাকা অবস্থায় রিপন সমকালকে জানান, শিশুসন্তান মেহেদী ও স্ত্রী সালেহা বেগমকে নিয়ে চলছিল তার জীবন। কিন্তু ৯ বছর বয়সে ছেলেটি দুরারোগ্য রোগে মারা যায়। কয়েক বছর পর তার স্ত্রী কালকিনি সাবেক পৌর কাউন্সিলর মজিবুর রহমানকে বিয়ে করেন। এতে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। এরপর থেকে বাবা তাকে একটি ঘরে শিকল বেঁধে বন্দি করে রাখেন। এভাবে বন্দি অবস্থায় চলে গেছে জীবনের মূল্যবান ২০টি বছর। এখন তিনি মুক্তি চান, ফিরতে চান স্বাভাবিক জীবনে।

রিপনের বাবা আ. রশিদ কুট্টি বেপারী বলেন, ‘স্ত্রী-সন্তান হারিয়ে রিপন পাগল হয়ে যায়। তাই যাতে অপরের ক্ষতি করতে না পারে সেজন্য শিকলে বেঁধে রেখেছি।’

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘আমি এই প্রথম বিষয়টি জানলাম। দ্রুত ব্যাপারটি ক্ষতিয়ে দেখব।’

কালকিনি পৌর মেয়র মো. এনায়েত হোসেন হাওলাদার বলেন, ‘রিপনকে সুস্থ করার জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করার চেষ্টা করব।’