print
এস এম আলতাফ হোসাইন সুমন লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি :

লালমনিরহাটে পাটগ্রাম উপজেলায় সড়ক ও জনপদের (সওজ) উচ্ছেদ অভিযানে বাঁধা দেয়ার অভিযোগে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদুল ইসলাম ও তার তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের । মঙ্গলবার ( ৫ ডিসেম্বর) সকালে সওজের ঢাকা অঞ্চলের ‘স্টেট এন্ড ল’ বিভাগে কর্মরত সার্ভেয়ার সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে পাটগ্রাম থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

গত সোমবার বিকেলে পাটগ্রাম উপজেলার বাইপাস সড়কের আব্দুল আজিজের বাড়ীর সামনে উচ্ছেদ অভিযান চলাকালে উচ্ছেদ অভিযানে বাধাঁ প্রদান করেন।

মামলার আসামীরা হলেন- উপজেলার সরকারী কলেজ মোড় এলাকার মৃত আব্দুল জ্বব্বারের বড় ছেলে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদুল ইসলাম (৩৫), ওয়াজেদুল ইসলাম(৩৩), জাহেদুল ইসলাম(৩০) ও ছোট ছেলে সাদেকুল ইসলাম(২৫)। তার সকলে সহোদর ভাই।

মামলার সুত্রে জানা গেছে, সওজের রংপুর জোনের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা ঢাকা বিভাগে কর্মরত সওজের এস্টেট এন্ড আইন কর্মকর্তা (উপসচিব) মাহবুবুর রহমানের নেতৃত্বে উপজেলার সরকারী কলেজ গেট থেকে আন্তজেলা বাইপাস সড়কের দুইধারে অবৈধস্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় বাইপাস সড়কের আব্দুল আজিজের বাড়ীর সামনে আসামীরা এসে উচ্ছেদে অভিযান কাজে বাঁধা সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে সওজের সার্ভেয়ার সাইফুল ইসলামের উপর হামলার চালালে তিন জন আহত হন। পরে ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীগন পালিয়ে যায় বলে মামলার বিবরণে উল্লেখ রয়েছে।

এ উচ্ছেদ অভিযানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর কুতুবুল আলম, সওজের লালমনিরহাট নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান, সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী ও উপজেলা পৌরসভার মেয়র শমসের আলী উপস্থিতি ছিলেন।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বলেন, কে বা কারা সরকারী কাজে বাঁধা দিয়েছে তা আমার জানা নেই। তবে আমার আমার ও আমার ভাইদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে এ মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পাটগ্রাম থানা ভারপ্রাপ্ত ককর্মকর্তা (ওসি) অবনি শংকর কর মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর কুতুবুল আলম বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক।

LEAVE A REPLY