রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ১ কোটি ৫০ লাখ ডলার ফেরত দিয়েছে ফিলিপাইন কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশ ব্যাংকের এ রিজার্ভ থেকে চুরি যায় মোট ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার।

শুক্রবার ফিলিপাইনের একটি আদালত তাদের কেন্দ্রীয় ব্যাংককে ১৫ মিলিয়ন (দেড় কোটি ডলার) বাংলাদেশ ব্যাংককে দিতে নির্দেশ দেন। এরপর ফিলিপাইনের অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিল বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধিদলকে নগদে দেড় কোটি ডলার বুঝিয়ে দেয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থনৈতিক গোয়েন্দা ইউনিটের মহাব্যবস্থাপক দেবপ্রসাদ দেবনাথের নেতৃত্বে অ্যান্টি মানি লন্ডারিং বিভাগের দুই সদস্যের প্রতিনিধিদল এ অর্থ গ্রহণ করে। গৃহীত অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে জমা করা হয়েছে।

রয়টার্সের হাতে আসা এক কোর্ট আদেশের ভিত্তিতে এ বার্তা সংস্থা তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, ফিলিপাইনের একটি আদালত সেপ্টেম্বর মাসে সিদ্ধান্ত দেন, ক্যাসিনো বস কিম ওয়ং এবং তার ইস্টার্ন হাওয়াই কোম্পানির জমা দেওয়া অর্থের বৈধ মালিক বাংলাদেশ ব্যাংক।

ফিলিপাইন কর্তৃপক্ষের কাছে দুই দফায় প্রায় ১৫ মিলিয়ন ডলার ফেরত দিয়েছেন কিম ওয়ং। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি যাওয়া ৮১ মিলিয়নের মধ্যে কয়েক মিলিয়ন দুই চীনা নাগরিকের মাধ্যমে তার হাতে আসে।