রাহুলের প্রেমে হাবুডুবু খেতেন কারিনা!

শাহিদ কাপুরের সঙ্গে কারিনার প্রেম ও পরে বিচ্ছেদ, সাইফ আলি খানের সঙ্গে প্রেম ও বিয়ে। এসব ঘটনার কথা প্রায় কমবেশি সকলেরই জানা। তবে আরও একজন রাজনীতিবিদ ছিলেন যার প্রেমে কাপুর কন্যা নাকি এক সময় হাবুডুবু খেতেন!

উনি হলেন ভারতের কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। হ্যাঁ খবরটা কিন্তু এক্কেবারে খাঁটি। এক সময় রাহুল গান্ধীকে ভীষণ পছন্দ ছিল কারিনার। তিনি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে ডেটে যাওয়ারও স্বপ্ন দেখতেন।

সাংবাদিক রশিদ কিদওয়াই এর লেখা ‘নেতা অভিনেতা’ নামে একটি বইতে উঠে এসেছে অভিনেতা, অভিনেত্রী ও রাজনীতিবিদদের সম্পর্কে নানান তথ্য। সেখান থেকেই উঠে এসেছে যে কারিনা কাপুর নাকি রাহুল গান্ধীকে এক সময় ভীষণ পছন্দ করতেন। তবে একথা শুধু রশিদ কিদওয়াইয়ের লেখা বইতেই নয়, ২০০২ সালে সিমি গারেওয়ালের একটি শোতে গিয়ে রাহুল গান্ধীর সঙ্গে ডেটে যাওয়ার ইচ্ছাও প্রকাশ করেছিলেন কারিনা। যদিও বিষয়টি নিয়ে যাতে কোনও রকম বিতর্ক তৈরি না হয় সে বিষয়েও সচেতন ছিলেন কাপুর কন্যা।

তবে অবশ্য শুধু কারিনা নন, রাহুল গান্ধীও নাকি কারিনার সব ছবির ফার্স্ট ডে ফার্স্ট শো দেখতে যেতেন। একথাও প্রকাশ্যে এনেছেন সাংবাদিক রশিদ কিদওয়াই। যদিও পরবর্তীকালে ২০০৯ সালে যখন সাংবাদিকরা তার রাহুল গান্ধীকে পছন্দ করার প্রসঙ্গ তোলেন, তখন অবশ্য কারিনা তার বয়ান বদলে ফেলেন।

কারিনা বলেন, ও অনেক পুরনো কথা, এই কাপুর ও গান্ধী দুই পরিবারই এদেশে ভীষণ বিখ্যাত তাই বলেছিলাম। যে উনার সঙ্গে একবার দেখা করে কথা বলতে চাই, তবে আমি উনার সঙ্গে ডেট করতে কখনওই চাইনি।

তবে এখানেই শেষ নয় সাংবাদিক রশিদ কিদওয়াই তার বই ‘নেতা অভিনেতা: বলিউড স্টার পাওয়ার ইন পলিটিক্স’-এ লিখেছেন, ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী নেহেরু ও অভিনেতা পৃথ্বিরাজ কাপুরের মধ্যে গভীর বন্ধুত্ব ছিল। ফলে ইন্দিরাও ছিলেন কাপুর পরিবারের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ।

দুই পরিবারের বন্ধুত্বকে আত্মীয়তার রূপ দিতে চেয়েছিলেন ইন্দিরা গান্ধী। সেজন্য রাজ কাপুরের মেয়ে ঋতুর সঙ্গে রাজীব গান্ধীর বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে বলিউডের প্রতি বিশেষ কোনও আকর্ষণ থেকে তিনি এই চেষ্টা করেছিলেন তেমনটা নয়। কাপুর পরিবারের প্রতি তার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা থেকেই এমনটা চেয়েছিলেন তিনি।