দক্ষিণ কোরিয়ার নারীরা নীল ছবির ব্যবসায়ীদের দাপটে বিষিয়ে উঠেছে।ঘরে-বাইরে কোথাও যেন শান্তি নেই। কেউ জানে না কোথায় বসানো হয়েছে গোপন ক্যামেরা। টয়লেট থেকে শুরু করে পাবলিক যানবাহন সর্বত্রই নীল ছবির ব্যবসায়ীরা গোপনে ক্যামেরা পেতে রেখেছেন। এরই প্রতিবাদ সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলের রাস্তায় নেমে এসেছিলেন অন্তত ৩০ হাজার নারী।
আর্ন্তজাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, দেশের ইতিহাসে নারীদের এত বিশাল বিক্ষোভ ও সমাবেশ আর কখনো হয়নি। বিক্ষোভকারীরা বলেছেন, তারা রাস্তাঘাটে কোথাও নিরাপদ অনুভব করতে পারেন না। সর্বত্রই গোপন ক্যামেরার ভয়ে থাকতে হয়। কিন্তু পুলিশ এসব অপরাধীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না। পর্ন ব্যবসার সঙ্গে জড়িত সবার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

কলকাতা টুয়েন্টিফোর’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্যামেরায় ছবি ও ভিডিও ধারণের সঙ্গে জড়িতদের পাশাপাশি যারা তা ডাউনলোড করেন এবং দেখেন তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন নারী বিক্ষোভকারীরা। তারা বলছেন, অনেক নারীই টয়লেটে যাওয়ার সময় নানা উপায়ে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করেন সেখানে ক্যামেরা বসানো আছে কিনা। কিন্তু এরপরও ক্যামেরা বিষাক্ত ছোবল থেকে পুরোপুরি মুক্ত হতে পারছেন না। গোপনে ধারণকৃত ছবি ও ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। এর মাধ্যমে তারা বিপুল অংকের অর্থ আয় করছে।