বোর্ডভিত্তিক ভিন্ন প্রশ্নে পরীক্ষা চূড়ান্ত, আধাঘণ্টা আগে সেট নির্ধারণ

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর মাত্র ১৮ দিন বাকি থাকলেও নতুন করে আরও একাধিক সেট প্রশ্নপত্র ছাপানো, বোর্ডভিত্তিক আলাদা প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়া, পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রশ্ন সেট নির্ধারণসহ বেশকিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে আগামী ১৯ মার্চ বিভাগীয় পর্যায়ে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করবে মন্ত্রণালয়। ২ এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে এসব উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এদিকে মাঠ প্রশাসনের সহযোগিতা পেতে মঙ্গলবার সকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত বৈঠকে আর উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ফারুক আহমেদ ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন।

বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন আজকালের খবরকে বলেন, মিটিংয়ের আলোচনার মূল বিষয় ছিল আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে কীভাবে আয়োজন করা যায়। মন্ত্রণালয়ের গাইডলাইনগুলো বাস্তবায়ন করতে আগামী ১৯ মার্চ বিভাগীয় পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে সভা করা হবে। সভায় জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও জেলা পুলিশ সুুপারসহ (এসপি) পরীক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবরা সভার সমন্বয় করবেন। সভাসহ পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে শেষ করতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

পরীক্ষার বিষয়ে জানতে চাইলে উপসচিব আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন আজকালের খবরকে বলেন, পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট কেন্দ্রে সচিবকে জানিয়ে দেওয়া হবে কোন সেট প্রশ্নে পরীক্ষা হবে। দুই সেটের বাইরে আরও একাধিক প্রশ্ন সেট ছাপানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। কেন্দ্রের দুইশ গজের মধ্যে কেউ মোবাইল নিয়ে ঢুকতে পারবে না। ঢুকলে তাকে গ্রেফতার করা হবে। কেন্দ্রসচিব শুধু কথা বলা যায়, এমন একটি ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের নিজ নিজ আসনে বসতে হবে। কাউকেই এর পরে পরীক্ষার কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

স্বল্পসময়ের মধ্যে বাড়িত সেট প্রশ্ন ছাপানো সম্ভব হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘চেষ্টা করছি আরও অন্তত এক সেট প্রশ্ন বাড়তি ছাপাতে। প্রথম দিকের দুই-একটি পরীক্ষা বাড়তি সেটে প্রশ্ন ছাপিয়ে নেওয়া সম্ভব না হলেও পরের পরীক্ষাগুলো নেব।’ অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সব বোর্ডে আলাদা আলাদা সেট প্রশ্নে পরীক্ষা হবে। কোন বোর্ড কোন সেট প্রশ্নে পরীক্ষা নেবে, তা পরীক্ষা শুরুর আধাঘণ্টা আগে লটারির মাধ্যমে ঠিক করে জানিয়ে দেওয়া হবে।’

মন্ত্রণালয় সূত্র আরও জানায়, গত ৩ মার্চ থেকে বিজি প্রেস থেকে প্রশ্ন ছাপিয়ে জেলা ও উপজেলা পর্যায় ট্রেজারিতে প্রশ্নপত্র পাঠানো হচ্ছে। প্রশ্নের নিরাপত্তার জন্য প্রতিটি বিষয়ের প্যাকেট এবার আলাদা আলাদা করা হয়েছে। প্যাকেটের ওপর নিরাপত্তা ট্যাপ লাগানো হয়েছে। পরীক্ষার আগে প্যাকেট খুললেই সঙ্গে সঙ্গে বিশেষ বার্তা যাবে কেন্দ্রেীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষে। জেলা এবং উপজেলার ট্রেজারি থেকে নির্ধারিত তিন সদস্যের কমিটি প্রশ্ন সংগ্রহ করবে। তিনজনের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক। কোনো কারণে একজন অনুপস্থিত থাকতে হলে আগেই ডিসিকে জানাতে হবে। তিনি নতুন সদস্য নিয়োগ দেবেন। কোনো কারণে কোথাও নির্ধারিত সময়ের ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর পরীক্ষা শুরু হলে, তা ঠিক তিন ঘণ্টা পর শেষ হবে। পরীক্ষার্থীদের ক্ষতি করা যাবে না।