বিক্ষোভকারীদের চুলে আগুন ধরাবে লেজার গান

বিক্ষোভকারীদের প্রতিহত করার জন্য বিশেষ ধরনের লেজার গান তৈরি করেছে একটি চীনা প্রতিষ্ঠান। দাঙ্গা পুলিশদের জন্য ডিজাইন করা এই বিশেষ অস্ত্র দিয়ে প্রায় এক কিলোমিটার দূর থেকে বিক্ষোভকারীদের চুল বা ব্যানারে আগুন ধরিয়ে দেওয়া সম্ভব। লেজার গানের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ‘জেডকেজেডএম’-এর পক্ষ থেকে বলা হয়, অস্ত্রটি প্রাণঘাতী নয়, কিন্তু টার্গেটের দেহে তাৎক্ষণিকভাবে তীব্র ব্যাথা সৃষ্টি করতে সক্ষম। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে থাকা বেআইনি পোস্টার ও ব্যানারে অগ্নিসংযোগ, অথবা বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে তাদের চুলে বা কাপড়ে আগুন ধরিয়ে দিতে পারবে এ অস্ত্র। ১৫ এমএম ক্যালিবারের অস্ত্রটির ওজন তিন কিলোগ্রাম। রেঞ্জ ৮শ’ মিটার। গ্লাস বা যেকোনো স্বচ্ছ প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে সহজেই টার্গেটে আঘাত হানতে পারবে। তাছাড়া গাড়ি, নৌকা, হেলিকপ্টার-প্লেনে সহজেই লেজার গানটি স্থাপন করা যাবে। জেডকেজেডএমের জেনারেল ম্যানেজার নাম প্রকাশ না করার শর্তে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমরা আশা করছি চীনা পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা এ অস্ত্র ব্যবহার করবেন। ভবিষ্যতে আমরা লেজার ক্যানন তৈরি করব যা আরও বেশি শক্তিশালী ও প্রাণঘাতী। জানা যায়, একটি আন্তর্জাতিক চুক্তি অনুযায়ী প্রাণঘাতী লেজার অস্ত্র নির্মাণ নিষিদ্ধ। কারণ এ ধরনের অস্ত্র অকল্পনীয় ব্যাথা সৃষ্টি করে। তাই বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণের জন্য পোস্টার ও চুলে অগ্নিসংযোগকারী লেজার গানকে অমানবিক আখ্যা দিয়ে সমালোচনাও হচ্ছে অনেক। যদিও এ ধরনের অস্ত্র কেবল চীনারাই তৈরি করেনি, যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েলসহ বড় বড় অস্ত্র নির্মাতা রাষ্ট্রগুলোর ভাণ্ডারে এমন অনেক অমানবিক অস্ত্র আছে বলে মনে করা হয়। গত বছর লকহিড মার্টিন ৬০ কিলোওয়াটের একটি লেজার গান নির্মাণের ঘোষণা দেয় যা খালি চোখে দৃশ্যমান হবে না। শত্রুর মর্টার সেল ও ড্রোন প্রতিহত করতে এই লেজার গান ব্যবহার করা হবে।