ফুটবল মাঠে রেফারিকে বেধড়ক মারপিট করল খেলোয়াড়রা

    ম্যাচ চলাকালে রেফারিকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে উত্তর ২৪ পরগনার বারাসতে। মঙ্গলবার বারাসত মাঠে ম্যাচ চলাকালে এই ঘটনা ঘটে।

    সিদ্ধান্ত পছন্দ না হওয়াতেই খেলোয়াড়রা রেফারির উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ।
    মঙ্গলবার বারাসত মাঠে কলকাতা লিগের প্রথম ডিভিশনের ম্যাচ ছিল। মুখোমুখি হয়েছিল তালতলা ও ডালহৌসি। ম্যাচ শুরুর পর থেকেই খেলার নিয়ন্ত্রণ ছিল তালতলার দখলে। কিছুক্ষণের মধ্যে দু’গোলে এগিয়ে যায় তালতলা। এই পরিস্থিতিতে একটি হ্যান্ডবলের জেরে ডালহৌসির বিরুদ্ধে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি রবীন বিশ্বাস। রেফারির এই সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে মাঠে গোলমাল শুরু হয়। রেফারির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সরব হন খেলোয়াড়রা।

    এনিয়ে বেশ কিছুক্ষণ বচসাও হয়।

    তখনই ডালহৌসির তিনজন খেলোয়াড় আচমকা রেফারি রবীন বিশ্বাসের উপর চড়াও হয়। রেফারিকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।
    প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, মাঠেই লুটিয়ে পড়েন রবীনবাবু। তার চোখে আঘাত লেগেছে। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় চিকিৎসার জন্য।

    মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গলের মতো বড় ক্লাবগুলো যখন কোনও ম্যাচ খেলতে থাকে, তখন উত্তেজনা থাকে অনেক বেশি। ফলে প্রায় প্রতি ম্যাচেই রেফারির একাধিক সিদ্ধান্ত ঘিরে আপত্তি ওঠে। রেফারির দিকে তেড়েও যান অনেকে। বচসাও হয়। কিন্তু রেফারিকে মারধরের ঘটনা প্রায় হয়ই না। সেখানে মঙ্গলবার ম্যাচ ছিল ফার্স্ট ডিভিশনের। এই পর্যায়ে বিভিন্ন ক্লাবে যে সমস্ত খেলোয়াড়রা অংশ নেন, তারা অধিকাংশই প্রিমিয়ার লিগে খেলার চেষ্টা করেন। তারা সব সময়ই চান, ভালো খেলে বড় ক্লাবের নজর কাড়তে চান সকলেই। ফলে এই পর্যায়ে রেফারির সঙ্গে সাধারণত বচসায় জড়াতে চান না কেউই। আর এক্ষেত্রে সরাসরি মারধর করা হয়েছে রেফারিকে। ফলে কেন এমন ঘটনা ঘটল, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।