মডেলিং ও নাটকে জনপ্রিয়তার পর সিনেমায় মনোযোগী হয়েছেন ইমন। অন্যদিকে, কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিএ। দুই বাংলার এ দুই তারকা জুটি বাঁধলেন একসাথে ঈদের একটি টেলিছবিতে। শিরোনাম ‌‘দার্জিলিংয়ের ভালোবাসা’। এটি পরিচালনা করবেন রাশেদ রাহা।

শ্রীলেখা মিএ কলকাতায় ছোট-বড় দুইপর্দায় সমান তাকে কাজ করে যাচ্ছেন। ঢাকাই  চলচ্চিত্রে শ্রীলেখা মিত্র ঠিকই অভিনয় করেছেন কিন্তু নাটক কিংবা টেলিছবিতে এবারই প্রথম। তবে কলকাতায়ও ৯ বছর ধরে নাটকে কাজ করা হচ্ছে না এই অভিনেত্রীর।

কলকাতার নাটক কিংবা টেলিছবিতে কাজ করার ক্ষেত্রে একটা অনীহাও আছে বলা যেতে পারে। কিন্তু সেখানে বাংলাদেশের টেলিছবিতে অভিনয় করতে রাজি হওয়ার কারণটা শ্রীলেখা বললেন এভাবেই, ‘গল্পটা একটু আধুনিক মনে হয়েছে। বাংলাদেশে অসংখ্য ভক্ত-অনুসারী আছেন, যারা আমার কাজ পছন্দ করেন, নিয়মিত মীরাক্কেল দেখেন। আমি টেলিভিশনে কাজ করছি না অনেক দিন। বাংলা ছবিও ওখানে মুক্তি দেওয়া হয় না, বলতে পারেন কৌশলগত কারণেও হ্যাঁ করা। আমি চাইছিলাম, বাংলাদেশের দর্শক একটু আমাকে দেখুক।

‘দার্জিলিংয়ের ভালোবাসা’ টেলিছবিতে কোন ধরনের চরিত্রে অভিনয় করবেন জানতে চাইলে শ্রীলেখা মিত্র বাংলা’কে বলেন, ‘এটা একজন দম্পতির গল্প। এই দম্পতির দাম্পত্যজীবনে মিষ্টি একটা ঘটনা ঘটে, স্থিতিশীলতা আসে-সেখান থেকে গল্পটার মোড় নেয়। বাকিটা দেখে নিতে হবে।’

‘দার্জিলিংয়ের ভালোবাসা’ আগামী ঈদে বাংলাভিশনে প্রচারের জন্য তৈরি হবে। আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে শুটিং শুরুর পরিকল্পনা করছেন পরিচালক রাশেদ রাহা। এটি গল্প লিখেছেন খায়রুল বাসার।

প্রসঙ্গত, ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী শ্রীলেখা মিত্রের বাবার বাড়ি বাংলাদেশের মাদারীপুর জেলায়। সময় পেলেই পরিবার নিয়ে বেড়িয়ে যান তিনি। গত বছর বাবাকে নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলেন তিনি। মাদারীপুর গিয়েছিলেন। ঢাকায় এসে উঠেছিলেন তারকা দম্পতী আলমগীর ও রুনা লায়লার বাসায়। চিত্রনায়ক আলমগীরকে তিনি বড় ভাই মনে করেন বলেও জানা গেছে।