এশিয়া কাপ জয়ের সাফল্যে প্রশংসার সাগরে সাথে সাখে পুরস্কারের বন্যায়ও ভাসছেন বাংলাদেশ নারী দলের ক্রিকেটাররা। সেই সাথে তাদের জন্য সাজানো হয়েছে পুরস্কারের ডালিও। অর্থ পুরস্কারের পাশাপাশি তারা পাচ্ছেন অভিজাত মুঠোফোন আইফোন সিক্স। এদিকে, এশিয়া কাপজয়ী নারী দলের জন্য ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোনো আর্থিক পুরস্কার ঘোষণা করা হয়নি। তবে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর সেই ঘোষণাও আসবে। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর তার সঙ্গে কথা বলে নারী দলের সুযোগ-সুবিধা এবং পুরস্কারের ঘোষণা দেয়া হবে। তাই সামনে অপেক্ষা করছে আরো অনেক পুরস্কার। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের স্পন্সর রবি’র পক্ষ থেকে সালমাদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে আইফোন। বাংলাদেশ ক্রিকেটের অফিসিয়াল স্পন্সর রবি’র পক্ষ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ক্রিকেটারদের হাতে এই উপহার তুলে দেওয়া হয়। এশিয়া কাপের জন্য মালয়েশিয়া সফর শেষে সোমবার দেশে ফিরেন ক্রিকেটাররা।
এশিয়া কাপ জিতে দেশে পা রেখেই ক্রিকেটাররা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের আয়োজিত ইফতার অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এ সময় নারী ক্রিকেটারদের সংবর্ধনা জানান বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সহ বোর্ডের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এ সময় বোর্ড সভাপতি এশিয়ার সেরা দল হওয়ার সাফল্যে নারী ক্রিকেট দলকে বিসিবির পক্ষ থেকে ২ কোটি টাকা পুরস্কার ঘোষনা করেন। আলাদাভাবে প্রত্যেক ক্রিকেটার পাবেন ১০ লক্ষ টাকা করে পুরস্কার। সেই সাথে ক্রিকেটারদের কী কী সুযোগ-সুবিধা প্রয়োজন তা দেখার জন্য একটি কমিটি গঠনেরও ঘোষণা দেন নাজমুল হাসান পাপন। তিনি জানান, ঐ কমিটি দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। ঐ সিদ্ধান্তের উপর ভিত্তি করে আরও কিছু ঘোষণা আসবে, যা ভারী করবে নারী ক্রিকেটারদের প্রাপ্তির তালিকা। জানা গেছে, নারী ক্রিকেটারদের মাসিক বেতনের পরিমাণও বাড়তে পারে। বর্তমানে সর্বোচ্চ ৩০ হাজার সর্বনিম্ন ১০ হাজার টাকা করে বোর্ড থেকে মাসিক বেতন পান নারী দলের ক্রিকেটাররা। রোববার এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ফাইনালে ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় বাংলাদেশ।

নারী ক্রিকেটের জন্য একাডেমি করবে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়:
নারী ক্রিকেটাররা প্রমান করেছে চেষ্টা থাকলে ভালো করা সম্ভব। কম সুযোগ সুবিধা, কম বেতন-ভাতা পেয়েও দেশের ক্রিকেটকে তারা গৌরবে ভাসিয়েছেন নিজেদের প্রচেষ্টায়। ভারতের মতো এশিয়া কাপের সর্বজয়ী দলকে মাটিতে নামিয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশকে একটি শিরোপা এনে দিয়েছেন তারা। মেয়েদের এমন সাফল্যে এবার টনক নড়েছে সবার। একে একে পুরস্কারের ঘোষণা আসছে, আসছে সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর আশ্বাসও। তেমনই একটি ঘোষণা এলো ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার মনে করছেন, এটা আমাদের দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় সাফল্য। নারী দলকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, সন্দেহাতীত ভাবেই আমাদের দেশের স্মরণীয় এবং সবচেয়ে বড় সাফল্য। আমরাও নারী ক্রিকেট দলকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাই।

আপাততঃ এশিয়া কাপজয়ী নারী দলের জন্য ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোনো আর্থিক পুরস্কার ঘোষণা করা হয়নি। তবে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর সেই ঘোষণাও আসবে। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর তার সঙ্গে কথা বলে নারী দলের সুযোগ-সুবিধা এবং পুরস্কারের ঘোষণা দেয়া হবে। সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর ঘোষণা হয়তো বড় পরিসরেই আসবে। তবে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী একটা বিষয় নিশ্চিত করে দিলেন, শুধু নারী ক্রিকেটারদের জন্য আলাদা একটি একাডেমি নির্মাণ করা হবে। বলা যায়, একটি বড় সাফল্যই অনেকগুলো দরজা খুলে দিলো সালমা-রুমানাদের, সঙ্গে তাদের পরের প্রজন্মেরও।

অসাধ্য সাধন করেছে মেয়েরা : পাপন
টি-২০ ম্যাচের শেষ পর্যায়ে পৌঁছে হারের বেদনা যদি জানতে চাওয়া হয়, সেটির ব্যাখ্যা বেশ ভালোভাবেই দিতে পারবে বাংলাদেশ পুরুষ ক্রিকেট দল। ইতিহাসের পাতায় অনেকগুলো ম্যাচ জমে আছে, যেখানে জয়ের খুব কাছ থেকে শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছে বাংলাদেশকে। সেই শঙ্কা আবারও উঁকি দিয়েছিল রোববার, প্রমীলা এশিয়া কাপের ফাইনাল ম্যাচে। ভারতের দেওয়া ১১৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে আরেকটু হলেই পা ফসকাত বাংলাদেশের মেয়েদের। তবে শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। বাঘিনীরা মাঠ ছেড়েছেন জয়ীর বেশেই। ছেলেদের ক্রিকেটে সেই দুঃখের কথা তুলে ধরে সোমবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ছেলেদের ক্রিকেট যদি দেখেন আমাদের মনে অনেক দুঃখ। আমরা শেষ বলে গিয়ে বারবার হারি। কোচের মতে, অসাধ্য সাধন করেছে মেয়েরা! মালয়েশিয়া ফেরত এশিয়া কাপজয়ী নারী ক্রিকেট দলের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, সেই টি-২০ বিশ্বকাপে ভারতের সঙ্গে খেলাটা আমরা চিন্তাই করিনি হারবে, কিছুদিন আগে নিদাহাস ট্রফিতে ওই ম্যাচ হেরে যাব চিন্তাই করতে পারিনি। এত কাছে গিয়ে হার। এবং সর্বশেষ আফগানিস্তানের শেষ ম্