পাটগ্রাম সীমান্তে বাংলাদেশি ও ভারতীয় কৃষকদের মধ্যে সংঘর্ষ

শাহিনুর ইসলাম প্রান্ত,
লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ
লালমনিরহাটের পাটগ্রাম সীমান্তে নো ম্যান্সল্যান্ডের জমির ভূট্রাক্ষেতের পাতা কেটে নিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে সীমান্তে বাংলাদেশী ও ভারতীয় গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার সকাল দুপুরের দিকে জেলার পাটগ্রাম উপজেলার উফারমারা সীমান্তে বাংলাদেশী ও ভারতীয় গ্রামবাসির মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা। এতে উভয় দেশের দুই জন আহত হয়েছে। এই ঘটনায় সীমান্ত গ্রামে তীব্র উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

বিজিবি ও গ্রামবাসি সূত্রে জানা গেছে, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার উফারমারা সীমান্ত নো ম্যান্সেল্যান্ডের জমি চাষাবাসের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারত-বাংলাদেশী বাসিন্ধাদের মধ্যে হাতাহাতি, মারপিটের ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় দেশের একজন করে নাগরিক আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

সীমান্তের মেইন পিলার ৮৩৮ এর সাব পিলার ৬ এর নিকট পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের উপারমারা গ্রাম সংলগ্ন সীমান্তবর্তী জমিতে কাজ করতে যায় ওই গ্রামের কুমুর উদ্দিনের পুত্র হাফিজুর ইসলাম(৩০)সহ ৫/৭ জন গ্রামবাসি।

এ সময় পার্শ্ববতী ভারতীয় গ্রামের ৭/৮ জন নাগরিক ওই সীমান্তের নো ম্যান্সল্যান্ডে কাজ করছিল। বাংলাদেশী নাগরিক হাফিজুর ইসলাম দেখতে পায় যে, তার জমির ভূট্রাক্ষেতের পাতা ভারতীয়রা কেটে নিয়ে গেছে। এই ঘটনায় নো-ম্যান্সল্যান্ডে জমির চাষাবাদ ও ভুট্রা গাছের পাতা কেটে নিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ভারতীয়দের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এই কথা কাটাকাটির জের ধরে ঘটনার এক পর্যায়ে হাতাহাতি, মারপিট ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে বাংলাদেশি নাগরিক হাফিজুর ইসলামসহ এক ভারতীয় নাগরিক আহত হয়েছে।

বাংলাদেশী নাগরিক হাফিজুর ইসলাম পাটগ্রাম হাসপাতালে জরুরী বিভাগের চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে যায় বলে হাসপাতাল সূত্র নিশ্চিত করেছে।
ভারতীয় নাগরিকের কোন পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে রংপুর ৬১ বিজিবি বুড়িমারী কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার আব্দুর মান্নান জানান, উভয় দেশের সীমান্তরক্ষীদের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে বিজিবি সূত্রে জানা যায় । এই ঘটনার পর হতে সীমান্তে বিজিবি নজরদারি বৃদ্ধি করেছে।