পৃথিবীর সবৃহৎ জার্মান পতাকা প্রদর্শন করলেন মাগুরার ‘পতাকা আমজাদ’ খ্যাত আমজাদ হোসেন। নিজের জমি বিক্রি করে আসন্ন ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ এ পতাকাটি তৈরি করেন জার্মান ফুটবল দলের সমর্থক আমজাদ হোসেন।
মাগুরা নিশ্চিন্তপুর স্কুল মাঠে মঙ্গলবার সকালে পতাকা প্রদর্শন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জার্মানি দূতাবাসের ডিপ্লোম্যাট ক্যারেন উইজোরা খাগিন এবং শিক্ষা ও সংস্কৃতি কর্মকর্তা তামারা কবির ছাড়াও বিপুল সংখ্যক এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।
আমজাদ জানান, ২০০৪ সালের বিশ্বকাপে নিজের জমি বিক্রি করে সাড়ে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা তৈরি করেছিলেন তিনি। সে সময় জার্মানির রাষ্ট্রদূত মাগুরা এসে তাকে সংবর্ধনা দিয়েছিলেন। এবার ১০ শতক জমি বিক্রির অর্থ এবং কিছু মানুষের সহযোগিতায় পতাকার দৈর্ঘ্য সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ করেছেন। কোন কিছু পাওয়ার আশায় নয়, শুধুমাত্র ফুটবলের প্রতি ভালোবাসা থেকেই তাই এই উদ্যোগ। তিনি আশা করেন জার্মানি দল এবারও চ্যাম্পিয়ন হবে। আর চ্যাম্পিয়ন হলে তিনি মাগুরা স্টেডিয়ামে পতাকা প্রদর্শন ও জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করবেন। এছাড়া ১৪ জুন জামার্ন ফ্যান ক্লাবের পক্ষ থেকে ঢাকার বসুন্ধারা এলাকায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। যেখানে তিনি মাগুরার জামার্ন ফুটবল ভক্তদের আগাম আমন্ত্রণ জানান।
আমজাদ বলেন, জীবিত থাকলে ২০২২ বিশ্বকাপে ২২ কিলোমিটার লম্বা জার্মানির পতাকা উপহার দেব।

মাগুরা সদরের ঘোমারা গ্রামের আমজাদ হোসেন (৫৫) কিশোর বয়সে কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত হন। পরে স্থানীয় একজন চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি জার্মানির হেমিওপ্যাথি ওষুধ খেয়ে সুস্থ্য হয়ে ওঠেন। সেই থেকে তিনি জার্মান ও জার্মান ফুটবল দলের একনিষ্ঠ ভক্ত বলে জানান।
বাংলাদেশে জার্মান দূতাবাসের ডিপ্লোম্যাট ক্যারেন উইজোরা খাগিন বলেন, আমরা আমজাদের এ উদ্যোগে অভিভূত। এটি এখন পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহৎ জার্মান পতাকা। তাই আমরা পতাকাটি দেখতে মাগুরা ছুটে এসেছি। আমরা জানি আমজাদ অনেক কষ্ট করে এটি তৈরি করেছেন। তাই আমাদের কর্তব্য তার পাশে থাকা। আমরা তার পাশে থাকব এবং আমজাদের জার্মানি সফরের জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেব।
তিনি আরও বলেন, আগামী বিশ্বকাপেও জার্মানি চ্যাম্পিয়ন হবে এবং খুব শিগগিরই বাংলাদেশ বিশ্বকাপ খেলবে এ আশাও রাখি।
জার্মান দূতাবাসের শিক্ষা ও সংস্কৃতি কর্মকর্তা তামারা কবির বলেন, আমজাদ বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যে একটি দারুণ বন্ধুত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। আগামীতে বাংলাদেশের ফুটবলকে কিভাবে এগিয়ে নেয়া যায় তা নিয়ে আমি জার্মানির যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলব।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম, রাজনীতিবিদ ও সমাজ সেবক অ্যাড. হাসান সিরাজ সুজা, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজার মোল্লা। এছাড়াও পার্শ্ববতী বিভিন্ন জেলা থেকে জার্মান ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা এ অনুষ্ঠানে যোগ দেন।