নিজেকে ‘ভ্যাম্পায়ার’ বলে দাবি তরুণীর,

সোশ্যাল মিডিয়ায় পরিচয়। তারপর সেই পরিচয় গড়ায় প্রেমে। প্রেমিকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতাও শুরু হয়। কিন্তু গোল বাঁধল প্রথমবার শারীরিক সম্পর্কে। প্রেমিকা ছুরি দিয়ে আঘাত করলেন প্রেমিককে। কারণ হিসেবে জানালেন, তার এমনটাই করা উচিত, কার তিনি একজন ভ্যাম্পায়ার আর তার প্রেমিক একজন ওয়্যালউলফ বা ‘নেকড়ে মানুষ’।

জানা গেছে, রাশিয়ার বাসিন্দা এই তরুণীর নাম একাটেরিনা টিরস্কায়া। প্রেমিকের সঙ্গে প্রথম রাতটি কাটানোর পরেই তার মনে হয়, তিনি একজন ভ্যাম্পায়ার। বস্তুত, তিনি নিজেকে জনপ্রিয় মার্কিনি টেলি-সিরিজ ‘দ্য ভ্যাম্পায়ার ডায়ারিজ’র নায়িকা এলেনা গিলবার্ট বলে মনে করেছিলেন। তারপরেই তার ধারণা হয়, তার প্রেমিক একজন ওয়্যারউলফ। এবং তার পবিত্র কর্তব্য হল ওয়্যারউলফকে বধ করা।

প্রসঙ্গত, পশ্চিমী বিশ্বের লোকধারণা অনুযায়ী, ভ্যাম্পায়ার বা রক্তপিপাসু পিশাচের চরম শত্রু হল ওয়্যারউলফ। এদের দ্বৈরথ নিয়ে রচিত হয়েছে অসংখ্য সাহিত্য। এই সাহিত্য থেকেই নির্মিত টেলি-সিরিজ দেখে একাটেরিনার ধারণা জন্মায় তিনি একজন ভ্যাম্পায়ার। তার প্রেমিককে সেকথা বললে, প্রেমিক তাতে বিশ্বাস তো করেননি, বরং তিনি জানান, এসব গল্পে তিনি বিশ্বাস করেন না। এতেই খেপে গিয়ে একাটেরিনা একটা ছুরি নিয়ে প্রেমিককে আক্রমণ করেন। প্রথম আঘাতটা এড়িয়ে গেলেও দ্বিতীয় বার একাটেরিনা ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন প্রেমিকের উপরে। এবার ছুরির আঘাত এসে লাগে তার বুকে।

কোন মতে প্রেমিকার হাত থেকে পালিয়ে আসেন প্রেমিক। তিনি প্রতিবেশীদের বাড়ি গিয়ে সাহায্য চান। প্রতিবেশীরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে য়ান। সেই যুবক আপাতত ভাল আছেন বলেই জানা গেছে। ওদিকে একাটেরিনাকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তাকে আদালতে পেশ করা হলে তার আড়াই বছরের জেল এবং ৩,৯০০ পাউন্ড জরিমানা হয়।