print
নাটোর প্রতিনিধিঃ
নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের শাহিদা (৩০) নামের এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে স্বামী নুর ইসলামের বিরুদ্ধে। বুধবার রাত ৮দিকে ঘটনাটি ঘটে। রাত নয়টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাতেই লাশটি ময়না তদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১৫ বছর আগে বড়াইগ্রাম উপজেলার তিরোইল গ্রামের দিন মুজুর সমজান আলীর মেয়ের সাথে নুর ইসলামের বিয়ে হয়। সে সময় যৌতুক হিসাবে সোনার গহনা ও নগদ ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছিল। বিয়ের পর থেকেই শাহিদাকে বিভিন্ন সময় নির্যাতন করতেন নুর ইসলাম। এনিয়ে কয়েক দফা সালিশ দরবারো হয়েছে। এলাকাবাসী আরো জানায়, গৃহবধূ শহিদা শান্ত প্রকৃতির মেয়ে। কারো সাথে বিবাদে জড়াতেন না। কিন্তু তার স্বামী নুর ইসলাম বিয়ের পর থেকেই শাহিদাকে মেনে নিতে পারেনি। মাঝে মাঝেই খালাতো বোনের সাথে যোগাযোগ করতেন। এ বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে টানাপড়েন চলছিল।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার জানান, লাশ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। নিহতের স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY