নতুন ক্লাবে অভিষেক তরুণ চার ব্রাজিলিয়ানের

    ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের দলবদলের বাজার গরম রেখেছেন ব্রাজিলিয়ান তরুণ তারকারা। পেলের দেশের ম্যালকম, আর্থার, ভিনিসিয়াস, রদ্রিগো, ফ্রেডরা হয়েছেন সংবাদ মাধ্যমের শিরোনাম। এদের মধ্যে কেবল রদ্রিগো এখনো নতুন ক্লাবে যোগ দেননি। ব্রাজিলের ১৭ বছরের তরুণ রিয়াল মাদ্রিদে আসবেন আরও এক মৌসুম পরে। তবে বাকি চারজনের নতুন ক্লাবে অভিষেক হয়ে গেছে।

    ভিনিসিয়াস জুনিয়র: ব্রাজিল তারকাদের মধ্যে সবার আগে দলবদলের চু্ক্তি সম্পন্ন করেছেন ব্রাজিলের ১৮ বছরের তরুণ ভিনিসিয়াস জুনিয়ার। রিয়ালের সঙ্গে এক বছর আগেই তার চু্ক্তি সম্পন্ন হয়েছে। তবে লস ব্লাঙ্কোসদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন চলতি মৌসুমে। তাকে ধারে পাঠানোর গুঞ্জন ছিল। তবে প্রথম মৌসুম তাকে দলের সঙ্গে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে ১৮ বছরের এই তরুণের রিয়ালের জার্সিতে অভিষেক হয়ে গেছে। ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপের ম্যাচটি অবশ্য রিয়াল হেরেছে। তবে রিয়াল সমর্থকদের মন জয় করেছেন ভিনিসিয়াস।

    ফ্রেড: শাখতার দোনেস্ক থেকে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ দলে থাকা ফ্রেডকে দলে ভেড়ায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। চ্যাম্পিয়নস কাপেই ম্যানইউয়ের জার্সি গায়ে উঠেছে তার। রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলেছেন ম্যানইউয়ের হয়ে দ্বিতীয় ম্যাচ। শাখতার দোনেস্কে ২৫ বছরের এই তারকা একশ’র ওপরে ম্যাচ খেলেছেন। রিয়ালের বিপক্ষে শুরুর একাদশে জায়গা পেয়ে দারুণ খেলেছেন এই মিডফিল্ডার। ফ্রেডের দারুণ পারফর্মের জন্য ভক্তরা তাতে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন। ম্যানইউ দারুণ একজন মিডফিল্ডার পেয়েছে বলে টুইট করেছেন অনেকে।

    ম্যালকম: ইতালির ক্লাব রোমায় যাওয়ার ফ্লাইট ধরতে প্রায় বেরিয়ে পড়েছিলেন ম্যালকম। কিন্তু ফ্রান্সের ক্লাব বোর্দো থেকে শেষ সময়ে তাকে দলে ভিড়িয়েছে বার্সা। ফ্রান্স থেকেই বার্সেলোনা দলের সঙ্গে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান ম্যালকম। এরপর টটেনহ্যামের বিপক্ষে ২৯ জুলাই অভিষেকও হয়ে যায় তার। দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামেন রোমার বিপক্ষে। ব্রাজিল তারকা ম্যালকম রোমার বিপক্ষে এক গোলও করেছেন। বার্সেলোনার শুরুর একাদশে জায়গা পেতে জোর দাবি তুলেছেন তিনি। বার্সা অবশ্য রোমার বিপক্ষে ম্যাচটা ৪-২ গোলে হেরেছে।

    আর্থার: ব্রাজিলের তরুণ তারকা আর্থার মেলোর মধ্যে অনেকে বার্সেলোনার সাবেক তারকা জাভিকে দেখছেন। কেউ কেউ মনে করছেন তিনি ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জয়ী তারকা টোস্টাওয়ের মতো। মাঝমাঠে দারুণ নিয়ন্ত্রন নিয়ে খেলতে পারেন তিনি। বার্সার খেলার ধরণের সঙ্গেও দ্রুত মানিয়ে নিয়েছেন এই তরুণ। আর্থার বার্সার হয়ে আস্থার প্রতিদান তার অভিষেক ম্যাচেই দিয়েছেন। টটেনহ্যামের বিপক্ষে ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপে দারুণ এক গোল করেছেন তিনি। রোমার বিপক্ষেও ছিলেন বার্সেলোনা দলে।