ধীরে খেলে মোটা হওয়ার ঝুঁকি কমে

জাপানের একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, দ্রুত খাওয়ার বদলে যারা ধীরে ধীরে খায় তাদের মধ্যে মোটা হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। এছাড়া ঘুমাতে যাওয়ার দুই ঘণ্টা আগে যারা কোন ধরনের খাবার খায় না তাদের মধ্যেও ওজন বাড়ার সম্ভাবনা কম থাকে।
গবেষণা বলছে, যারা ধীরে খায় তাদের স্বাস্থ্যও তুলনামুলকভাবে ভালো থাকে। আর যারা সাধারন গতি কিংবা তাড়াহুড়া করে খায় তাদের চাইতে যারা ধীরে খায় তারা তুলনামুলকভাবে স্বাস্থ্যকর জীবনপদ্ধতিও মেনে চলে।
জাপানের ফুকুডাতে অবস্থিত ‘কায়সু ইউনিভার্সিটি গ্রাজুয়েট স্কুল অফ মেডিকেল সায়ন্স’ এর গবেষক ড. ডেভিড কাটজ বলেন, ধীরে ধীরে খাওয়া স্থূলতা কমাতে সাহায্য করে। তিনি আরও বলেন, নিয়ম মেনে খাবার খেলে তা শরীর সুস্থ রাখবে এবং মোটা হওয়ার প্রবণতা কমাবে।
গবেষক দল ২০০৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত প্রায় ৬০ হাজার ডায়বেটিসে আক্রান্ত জাপানি অধিবাসী উপর গবেষণা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছান।
শুধু ধীরে খাওয়া নয়, গবেষক দল ওজন কমানোর জন্য ঘুমানোর অন্তত দুই ঘণ্টা আগে রাতের খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন। সেই সঙ্গে সকালের নাস্তাও ভালভাবে করতে বলেন।
গবেষক দল বলছেন, ধীরে খেলে শরীরে পরিতৃপ্তি আসে। পেট ভরা লাগে।
গবেষক দলের আরেকজন হেলার বলেন, দ্রুত খাওয়ার সঙ্গে মোটা হওয়ার প্রবণতা, হৃদরোগ জড়িত। তাই সুস্থ থাকতে যথা সম্ভব ধীরে ধীরে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলার পরামর্শ দেন ওই গবেষক। সূত্র : ওয়েব এমডি