দ্বিতীয় রাউন্ডে মেক্সিকোর বিপক্ষে খেলবে নেইমাররা

    গতকাল (২৭জুন) সার্বিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে পা রাখল ব্রাজিল। সেখানে তাদের প্রতিপক্ষ মেক্সিকো। ৭ পয়েন্ট নিয়ে ‘ই’ গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ব্রাজিল। ব্রাজিলের হয়ে গোল করেছেন পাওলিনহো ও থিয়াগো সিলভা। আগামী ৩ জুলাই বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে এফ গ্রুপের রানারআপ মেক্সিকোর মুখোমুখি হবে সিলভা বাহিনী।
    বাংলাদেশ সময় বুধবার দিবাগত রাত ১২টায় ই গ্রুপের এই ম্যাচটি শুরু হয়েছিল। জিতলে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সম্ভাবনা টিকে থাকবে, আর হারলে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়- এমন সমীকরণ সামনে নিয়ে সার্বিয়ার বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল ৫ বারের চ্যাম্পিয়নরা।

    ৩৬ মিনিটে কাঙ্খিত গোলের দেখা পেয়ে যায় ব্রাজিল। গোলের উৎস এবারও টুর্নামেন্টে ব্রাজিলের সেরা খেলোয়াড় কৌতিনিয়ো। তার দুর্দান্ত পাসটা অরক্ষিত অবস্থা থেকে দারুন এক দৌড়ে ধরে ফেলেন বার্সেলোনা সতীর্থ পাওলিনহো। গোলরক্ষক সামনে এগিয়ে আসলেও পাওলিনহো সেটা মাথার ওপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন জালে। প্রথমার্ধ শেষে ১-০ গোলে এগিয়ে ব্রাজিল।

    দ্বিতীয়ার্ধের ৫৬ মিনিটে এক প্রতি আক্রমণ থেকে আরেকটি সুযোগ পেয়েছিল ব্রাজিল। কুতিন্যোর দুর্দান্ত থ্রু খুঁজে নেয় নেইমারকে, কিন্তু তাঁর শট ঠেকিয়ে দেন স্টকোভিচ।

    এরপর ব্রাজিলকে বেশ চেপে ধরে সার্বিয়া। এলিসন একটা বল ক্লিয়ার ক্লরতে গিওয়ে ৫৯ মিনিটে বল দিয়েছিলেন মিত্রোভিচের কাছে। কিন্তু সার্বিয়ান স্ট্রাইকারের হেড থিয়াগো সিলভার গায়ে লাগে, ফিরতি বলটা সৌভাগ্যক্রমে ধরে ফেলেন এলিসন। মিনিট দুয়েক পর মিলিনকোভিচ সাভিচের হেড একটুর জন্য চলে যায় পোস্টের বাইরে দিয়ে। ৬৫ মিনিটে আবারও মিত্রোভিচের হেড, এবার সরাসরি বলটা ধরে ফেলেন এলিসন।

    ৬৮ মিনিটে দ্বিতীয় গোল পেয়ে যায় ব্রাজিল। নেইমারের কর্নার থেকে দারুণ হেডে বল জালে জড়িয়ে দেন থিয়াগো সিলভা। ৩৩ বছর বয়সে ব্রাজিলের হয়ে গোল পেলেন সিলভা, ব্রাজিলের হয়ে বিশ্বকাপে এর চেয়ে বেশি বয়সে গোল করেছেন শুধু বেবেতো।

    ৮৬তম মিনিটে গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় বাড়েনি ব্যবধান। সার্বিয়ার এক খেলোয়াড়ের পায়ে লাগার পর বল পেয়ে যান নেইমার। গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে তুলে দিয়েছিলেন এই তারকা ফরোয়ার্ড। কিন্তু হাত বাড়িয়ে কোনোরকমে বলের নাগাল পেয়ে যান স্তয়কোভিচ। আরেকবার গোল বঞ্চিত হন নেইমার।