print
দৌলতপুর প্রতিনিধিঃ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার রিফায়েত পুর ইউনিয়নের ঝাউদিয়া গ্রামের রবিউলের ছেলে রনির স্ত্রী ছনিয়া ও আড়িয়া ইউনিয়নের ২ সন্তানের জননী ছপুরার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে দৌলতপুর থানা পুলিশ।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে বৃহস্পতিবার রাতে ছনিয়া (২২) নিজ বাড়ীতে ঘরের বাঁশের আড়ার সাথে উড়না দিয়ে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ, ধারণা করা হচ্ছে ফাঁস দিয়ে আত্বহত্যা করে ছনিয়া, এলাকাবাসী জানাই মাত্র ১ বছর আগে ছনিয়ার বিয়ে হয়েছে। এ বিষয়ে প্রতিবেশী ছনিয়া নামে এক কলেজ ছাত্রী জানান ওদের দুজনের খুব কম বয়সে বিয়ে হয়েছে বলে মাঝে মধ্যে ছোট-খাট ঝগড়া হত তবে তাদের ভিতরে মিল ছিলো কারণ প্রেম করে বিয়ে। অপর দিকে আড়ীয়া ইউনিয়নের আড়ীয়া গ্রামের ফারুকের স্ত্রী ছপুরা (২৫) নামে দুই সন্তানের জনোনীর ঝুলোন্ত লাশ উদ্ধার করেছে দৌলতপুর থানা পুলিশ। এলাকাবাসী জানান, ছপুরা শুক্র বার রাত আনুমানিক ৩ টার দিকে তার নিজ ঘরে বাঁশের আড়ার সাথে উড়না দিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্বহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ছপুরার মামা তাহাজুল জানান আমার ভাগনীর মাথাতে সমস্যা ছিল তাই মনে হয় সে এই কাজ করেছে।
এ বিষয়ে দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ্ দারা খাঁন পিপিএম জানান পুলিশ ২ টি লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে,ময়না তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY