বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দুই মামলায় আদালতে উপস্থাপনের শুনানির দিন আগামী ২৫ এপ্রিল ধার্য করেছেন আদালত।

আজ রোববার মামলাগুলোর মধ্যে যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়া সংক্রান্ত মানহানির একটি মামলায় ওই সংক্রান্ত শুনানির দিন ধার্য ছিল। কিন্তু এদিন মামলাটির নিয়মিত বিচার ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীব না থাকায় ভারপ্রাপ্ত বিচার সাদবির ইয়াছিল আহসান চৌধুরী আগামী ২৫ এপ্রিল শুনানির নতুন দিন ধার্য করেন।

আর ভুয়া জন্মদিন পালন সংক্রান্ত মানহানির অপর একটি মামলায় একইদিন ওই সংক্রান্ত অন্য একটি আদালতে শুনানির দিন ধার্য আছে।

গত ১২ এপ্রিল উভয় মামলায় আদালতে উপস্থাপনসহ জামিনের আবেদন করেন সাবেক এ প্রধানন্ত্রীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার।

মামলাগুলো সম্পর্কে মাসুদ আহমেদ বলেন, ‘আমরা আদালতকে বলেছি, খালেদা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় কারাগারে আছেন। এই মামলা দুটিতে আদালত তার বিরুদ্ধে এর আগেই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে রেখেছেন। তাই মামলাগুলোয় তাকে গ্রেপ্তার দেখানোর জন্য এবং তার জামিন আবেদনের শুনানির জন্য আদালত উপস্থাপন করা প্রয়োজন।’

এর আগে ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী জহিরুল ইসলাম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ভুয়া জন্মদিনের মামলা দায়ের করেন। পরে ওই বছর ২৭ নভেম্বর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

অন্যদিকে যুদ্ধাপরাধীদের মদদের মামলাটি ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বরে বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এবি সিদ্দিকী দায়ের করেন। ২০১৭ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) এবিএম মশিউর রহমান খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন। ওই বছর ১২ অক্টোবর সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।