দিনাজপুর প্রতিনিধি
দিনাজপুরের বিরলে এক রশিতে কিশোর-কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় তারা আত্মহত্যা করেছে বলে ভাষ্য পুলিশ ও এলাকাবাসীর।

বৃহস্পতিবার দুপুরে দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তারা হলো—বিরল উপজেলার সাকোইর গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে রাকিব বাবু (১৬) ও কৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত হরিপদ পালের মেয়ে পূর্ণিমা রানী পাল (১৫)। রাকিব বিরল উপজেলার রঘুপুর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম এবং পূর্ণিমা নবম শ্রেণিতে পড়ত।

স্বজনরা জানায়, তিন বছর ধরে পূর্ণিমা ও রাকিবের মধ্যে প্রেম চলছিল। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর তাদের শাসন করা হয়।বুধবার বিকেলে স্কুল ছুটির পর দুজনেই উধাও হয়ে যায়। রাতে খোঁজাখুঁজি করেও তাদের পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার উপজেলার সাকোইর গ্রামের ফুলদীঘি নামক স্থানে বাঁশঝাড়ের কাছে একটি আম গাছে একই রশিতে দুজনের ঝুলন্ত লাশ দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়।

বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ হোসেন জানান, তাদের ধারণা, এটি আত্মহত্যা।

উভয়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক থাকার কথা উল্লেখ করে ওসি বলেন, ‘দুজন দুই ধর্মের হওয়ায় পরিবার তাদের প্রেম মেনে নেয়নি। বিষয়টি মাথায় রেখে তদন্ত চলছে।’

এদিকে, সকাল ১১টায় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ইমরান হোসেন (২২) নামে একজনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওসমানপুর বাজার এলাকায় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ সেন্টারে বৈদ্যুতিক পাখার সঙ্গে গামছা বাঁধা অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করা হয়।

ইমরান ঘোড়াঘাট পৌর শহরের চকবামুনিয়া বিশ্বনাথপুর গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে।