অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, দরিদ্র মায়েদের জন্য মাতৃত্বকালীন ভাতা মাসিক ৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০০ টাকা হয়েছে। ভাতার মেয়াদও ২ বছরের জায়গায় ৩ বছর করা হয়েছে। পাশাপাশি ভাতাভোগীর সংখ্যা ৬ লাখ থেকে ৭ লাখে বৃদ্ধি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপন বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত একথা জানান।

তিনি বলেন, ভাতার হার ও ভাতাভোগীর সংখ্যা বাড়ানোর পাশাপাশি সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমকে লক্ষ্যভিত্তিক, স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক করার জন্য তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক সংস্কার কার্যক্রম তথা জি-টু-পি (Government to Person) পদ্ধতির প্রবর্তন করেছি। এর আওতায় প্রত্যেক উপকারভোগী সরকারি কোষাগার থেকে ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফারের মাধ্যমে নিজ নিজ পছন্দের ব্যাংক হিসাব বা মোবাইল হিসাবে মাসের নির্দিষ্ট তারিখে ভাতা পাবেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, পাশাপাশি জাতীয় পরিচয়পত্রের সঙ্গে সংযোগ রেখে প্রত্যেক সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির জন্য ডিজিটাল তথ্য-ভাণ্ডার প্রস্তুত করা হচ্ছে, যা উপকারভোগী নির্বাচনে দ্বৈততা পরিহারে সহায়তা করবে। নতুন ভাতার আবেদন, অভিযোগ ব্যবস্থাপনা, অর্থ বরাদ্দ, অর্থছাড় ইত্যাদি বিষয়ও এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বয়স্কভাতা বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা ভাতা এবং প্রতিবন্ধী ভাতা ১১টি জেলায় জি-টু-পি পদ্ধতিতে বিতরণের প্রস্তুতি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। আশা করছি, আগামী অর্থবছরে সারাদেশে এটি সম্প্রসারণ করতে পারব।