জাপা এখন আর গৃহপালিত বিরোধী দল নয় :এরশাদ

306
Smiley face

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, জাতীয় পার্টি (জাপা) এখন আর গৃহপালিত বিরোধী দল নয়। সম্মিলিত জাতীয় জোট গঠনের পর জাপা ঘুরে দাঁড়িয়েছে। জাপা এখন সামনের সারির দল।

মঙ্গলবার রাজধানীর ইমানুয়েলস সেন্টারে ঢাকা উত্তর জাপা আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ বলেন, সংসদে আগে আমরা কথা বলতে পারতাম না। সরকারের সব কাজের সমর্থন করে যেতাম। মানুষ আমাদের গৃহপালিত বিরোধী দল বলত। কিন্তু সম্মিলিত জাতীয় জোট গঠনের পর আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি। জনগণ আমাদের নিয়ে নতুনভাবে চিন্তা করছে। এখন আর আমরা গৃহপালিত বিরোধী দল নই। এখন আমরা সামনের সারির দল।

আগামী নির্বাচনে জাপার ক্ষমতায় যাওয়ার সমুহ সম্ভবনা আছে এমন মন্তব্য করে সাবেক প্রেসিডেন্ট এরশাদ বলেন, জাপা ঘুরে দাড়িয়েছে। জাপাকে এখন গুণতে হবে। জাপা ছাড়া আগামী নির্বাচন হবে না। আমরা ঠিক মতো কাজ করতে পারলে আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় যাওয়ার যথেষ্ট সম্ভবনা রয়েছে।

বাংলাদেশ অভিশপ্ত দেশে পরিণত হয়েছে এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ বলেন, প্রতিদিন মানুষ মরছে। কোথাও সু-সংবাদ শোনা যাচ্ছে না। কিছুদিন আগে হাওরে বন্যায় লাখ লাখ টন ধান নষ্ট হলো। সেখানকার মানুষ এখন না খেয়ে আছে। ক’দিন আগে পাহাড় ধসে দেড় শতাধিক লোক মারা গেল। সোমবার বয়লার বিস্ফোরণে নয় জন মারা গেল। চারদিকে শুধু মৃত্যু, মৃত্যু আর মৃত্যু। এই অভিশাপ থেকে দেশকে মুক্ত করতে পরিবর্তন প্রয়োজন। আর সেই পরিবর্তন আনতে পারে কেবল জাপা। জোট গঠনের পর জাপার প্রতি জনগণের আস্থা বেড়ে গেছে। আগামীতে জাপাই হবে জনগণের ভরসাস্থল।

সাবেক প্রেসিডেন্ট এরশাদ বলেন, আমরা সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে চেয়েছিলাম, রক্তাক্ত বাংলাদেশ দেখতে চাই নাই। আমাকে জেলে নিয়ে ছিল, মেরে ফেলতে চেয়েছিল, এখনো বেঁচে আছি আল্লাহর অশেষ রহমতে, দেশের মানুষের দোয়ায়।

তিনি বলেন, পরিবর্তন একমাত্র আমরাই পারবো। আমাদের উন্নয়নের কথা বলে শেষ করা যাবে না। আমাদের সৎ সাহস আছে। আমি যখন তোমাদের মূখ দেখি তখন সকল দুঃখ ভুলে যাই।

ঢাকা উত্তর জাপার সভাপতি এস এম ফয়সাল চিশতীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, মেজর অব. খালেদ আখতার, ঢাকা উত্তর জাপার সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সেন্টু ও ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক।