আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সকাল সাড়ে ৮টায় রাজধানী ঢাকায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। রোববার (১০জুন) জাতীয় ঈদ জামাত বিষয়ক সমন্বয় সভায় ঢাকা দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন জানান, জাতীয় ঈদগাহে এবার প্রায় এক লাখ লোক নামাজ আদায় করতে পারবেন।
“এখানে নামাজে যেন এক লাখের মতো মুসল্লি অংশ নিতে পারেন সে ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। এতে সেসব সংস্থা জড়িত আছে তারা সবাই তাদের কাজ চৌদ্দ তারিখের মধ্যে সম্পন্ন করবেন।” ঈদের জামাতে প্যান্ডেলে একসঙ্গে ৮৫ হাজার মুসল্লি নামাজ পড়তে পারবেন। এছাড়া আবহাওয়া ভালো থাকলে জাতীয় ঈদগাহ মাঠের সামনের সড়কের মৎস্য ভবন, প্রেসক্লাব থেকে পল্টন এবং আশপাশের সড়কেও নামাজ পড়া যাবে।

ছয় হাজার নারীও জাতীয় ঈদগাহে নামাজ আদায় করতে পারবেন জানিয়ে মেয়র বলেন, সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সকাল সাড়ে ৮টায় সময় নির্ধারণ হলেও আবহাওয়া বৈরী থাকলে সকাল ৯টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে প্রধান ঈদ জামাত হবে।ঈদগাহ এলাকার নিরাপত্তায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হচ্ছে। বৃষ্টির সময় বজ্রপাতজনিত দুর্ঘটনা এড়াতে ঈদগাহ মাঠে বজ্র প্রতিরোধ দণ্ড স্থাপন করা হবে।

সাঈদ খোকন বলেন, জাতীয় ঈদগাহ এলাকায় তিন স্তর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হবে। “নিরাপত্তার চাদরে পুরো এলাকা ঢেকে দেওয়া হবে। নিরাপত্তা একশভাগ নিশ্চিত করতে আমরা সক্ষম হবো।”

মেয়র জানান, মুসল্লিদের ওজুর ব্যবস্থা করা, খাবার পানির ব্যবস্থা থাকবে। বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।জামাতে আগতদের জন্য মোবাইল টয়লেটের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়াও থাকবে জরুরি চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য বিশেষ মেডিকেল টিম।

সমন্বয় সভায় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত অধিদপ্তর, পুলিশ, র‌্যাব, ঢাকা ওয়াসা, আবহাওয়া অধিদপ্তর, ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, ঢাকা জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।