জনতার হাতে ছিনতাইকারী আটক, থানা হাজত থেকে মুক্তি ! (ভিডিও সহ)

নোমান মাহমুদঃ গতকাল (সোমবার) রাতে সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মোটরসাইকেলযোগ অস্ত্রের মুখে পথচারীদের জিম্মি করে ছিনতাইয়ের সময় জনতার হাতে হৃদয় ও মেহেদী নামে আটক দুই ছিনতাইকারীকে রাতেই থানা হাজত থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে সাভার মডেল থানা পুলিশের বিরুদ্ধে।

এদিকে হাতেনাতে আটক হওয়ার পর ছিনতাইকারীদের আদালতে সোপর্দ করার বদলে থানা হাজত থেকে মুক্তি দেওয়ায় বিভিন্ন মহলে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কেউ কেউ বলছেন থানা হাজত থেকে অপরাধীদের ছেড়ে দেওয়ার প্রবনতা এর আগেও পুলিশে কর্মকর্তাদের মধ্যে লক্ষ করা গেছে। আজকের ঘটনা তারই পূনরাবৃত্তি মাত্র।

অন্যদিকে সাম্প্রতিক সময়ে সাভারের বিভিন্ন এলাকায় একের পর এক চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেই চলেছে। সর্বশেষ গতকাল সাভারের পৌর এলাকা ব্যাংক টাউনে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এসকল অপরাধের সাথে জড়িতরা গ্রেফতার হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অপরাধীরা থেকে যায় ধরা-ছোঁয়ার বাহিরে। আর এমন পরিস্থিতে ঝুকি নিয়ে সাধারন জনগণ অপরাধীদের আটক করে বিচারের আশায় থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ার পর অপরাধীদের আদালতে সোপর্দ করার বিপরিতে তাদের মুক্তি দেওয়ায় এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়াসহ অপরাধীদের মধ্যে অপরাধের প্রবনতা আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশংকা করছেন সচেতন মহল।

এবিষয়ে জানতে চাইলে সাভার মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আজগর আটক ২ ছিনতাইকারীকে থানা হাজত থেকে মুক্তি দেওয়ার ঘটনা স্বীকার করে আওয়ার নিউজ ২৪ ডটকম’কে বলেন, ”আটককৃতদের নিয়ে থানায় আসার পর তাদের অভিভাবকদের খবর দেওয়া হয়। পরে খোজ খবর নিয়ে আমরা জানতে পারি তারা অপরাধী না, তাই তাদের অভিভাবকদের ডেকে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।”

এদিকে ছিনতাইয়ের সময় জনতার হাতে হাতেনাতে আটক হওয়ার পর কিভাবে পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের নিরপরাধ দাবী করা হয় এমন প্রশ্নের জবাবে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ”দেখেন উত্তেজিত জনতা অনেক রকম কথাই বলতে পারে, আর ভুক্তভোগীর সাথেও আমরা কথা বলেছি, ভুক্তভোগী বাদি হয়ে থানায় কোন মামলা দিতে চায়নি।”

একই প্রসঙ্গে কথা বলতে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসিনুল কাদিরের মোবাইলে একাধীকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য গতকাল (সোমবার) রাত ৮.০০টা নাগাদ সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ব্যাংক টাউন ব্রিজ এলাকায় ৩টি মোটরসাইকেলে করে ৯ জনের একটি ছিনতাইকারী দল সবুজ মিয়া নামের এক যুবকসহ এক নারী পোষাক শ্রমিককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাদের কাছে থাকা মোবাইল ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার সময় ভুক্তভোগীদের ডাক-চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে একটি মোটরসাইকেলসহ (ঢাকা মেট্রো ল ৩৪-৩১৩১) হৃদয় হোসেন (২০) ও মেহেদী হাসান (২০) নামে দুই ছিনতাইকারীকে আটক করে। এসময় বাকী ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। পরে উত্তেজিত জনতা আটক ছিনতাইকারীদের গণধোলাই দিয়ে পাশের ব্যাংক টাউন আনসার ক্যাম্পে আটকে রেখে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজগর আলী ঘটনাস্থলে এসে মোটরসাইকেলসহ ছিনতাইকারীদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়। খবর নিয়ে জানা যায় আটক হওয়া দুই ছিনতাইকারী সাভারের ”কলেজ অব ফাইন্যান্স এন্ড ম্যানেজমেন্ট” (সিএফএম) কলেজের ছাত্র।