জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করুন, পুলিশের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী

Smiley face

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেছেন, জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করুন। দেশ ও জাতির কল্যাণে আপনারা নিবেদিত থাকবেন। পুলিশ বাহিনীকে জনবান্ধব ও দক্ষ করতে আধুনিক প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

বুধবার সকালে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ৩৫তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের (এএসপি) শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী দিকনির্দেশনামূলক ভাষণে এসব কথা বলেন।

এক বছরব্যাপী প্রশিক্ষণ কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করায় নবীন কর্মকর্তাদের শুভেচ্ছা, অভিনন্দন ও আন্তরিক ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ পুলিশ সদস্যদের শ্রদ্ধা জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে। মানুষ বিপদের সময় পুলিশের কাছে সাহায্যের জন্য আসে। তাই সেবা ও মানবিক আচরণের মাধ্যমে মানুষের আস্থা অর্জনে সচেষ্ট থাকতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অভ্যন্তরীণ শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা বিধান, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস ও অপরাধ দমন, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখার পাশাপাশি বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বজায় রাখতে পুলিশ সদস্যরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের পুলিশ জাতিসংঘে শান্তিরক্ষা মিশনে দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের জন্য বহির্বিশ্বে প্রশংসা অর্জন করেছে। সন্ত্রাস দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে। মাদক দমনেও পুলিশকে আরও বেশি ভূমিকা রাখতে হবে। মাদক একটি পরিবার ও সমাজকে শেষ করে দেয়। মাদকের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। মাদক ব্যবসায় যারাই জড়িত সবাইকে কঠোরভাবে দমন করতে হবে। আপনারা জঙ্গি দমনে সফল হয়েছেন। মাদক নির্মুলেও সফল হতে হবে।

পুলিশবাহিনীকে নতুন চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, প্রযুক্তির উন্নয়নের পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী অপরাধের ধরন দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে। বিশেষ করে সিয়াবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে দক্ষ হতে হবে।