Smiley face

সজীব খান :
চাঁদপুর পুরান বাজারের জাফরাবাদ এলাকায় মেঘনা নদীর তীরে এই প্রথম চাঁদপুর জেলা আঞ্চলিক ইজতেমার জুমার নামাজে লাখ লাখ মুসল্লির সমাগম হয়েছে। গত ৩০ নভেম্বর চাঁদপুরে ৩ দিন ব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমার শুক্রবার ছিল দ্বিতীয় দিন।
শুক্রবার সরকারি ছুটি হওয়ায় জুমার নামাজে অংশ গ্রহনের জন্য চাঁদপুরের আঞ্চলিক ইজতেমা ময়দানে মুসল্লিদের সমাগত শুরু হয়। সকাল থেকেই জুমার নামাজে অংশ গ্রহনের জন্য জেলার প্রত্যান্ত অঞ্চল থেকে মুসল্লিরা চাঁদপুর মেঘনা নদীর পাড়ে ঝড় হতে থাকে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে কনায় কানায় পরিপূর্ণ হতে থাকে আঞ্চলিক ইজতেমা ময়দান।
সড়ক ও নৌ পথে জুমার নামাজে অংশ গ্রহনের জন্য ইজতেমার মাঠে ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগন আসতে থাকে। ইজতেমার মাঠে মুসল্লীরা যাতে নিরাপদে আসতে পারে সেজন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠর নিরাপত্তার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
শহরের বিভিন্ন সড়কে বিশাল জ্যাম উপেক্ষা করে মুসল্লীগন ইজতেমা ময়দানে আসতে থাকে। সকলের একটাই ইচ্ছে ছিল, চাঁদপুরে প্রথম বারের মত অনুষ্ঠিত ইজতেমার মাঠে প্রথম জুমার নামাজে অংশ গ্রহন করা। সেলক্ষে যে যে ভাবে পেরেছে, সে সেভাবেই ইজতেমার মাঠে ছুটে এসেছে। অনেকে যানবাহন থেকে নেমে পায়ে হেঁটে ইজতেমার মাঠে চলে এসেছে।
ইজতেমার মাঠে মুসল্লীদের নিরাপত্তার জন্য পুুলিশ ও ট্র্যাফিক ব্যাপক হারে দায়িত্ব পালন করেছে। শহরের যাতে দ্রুত জ্যাম কেটে যায়, সেজন্য ট্র্যাফিক ও পুলিশ একত্রে কাজ করেছে। এজন্য পুলিশ প্রশাসনকে সাধারণ মানুষ ধন্যবাদ জানিয়েছে।
জামার নামাজের পর ইজতেমার মাঠ পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ আবদুস সবুর মন্ডল, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ জহিরুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা শাহীর পাটওয়ারী, মাসুদ পাটওয়ারী, জিন্নান পাটওয়ারী, ফারুক পাটওয়ারী, মফিজ সরকার, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন রতন, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক শফিকুর রহমানসহ বিভিন্ন স্থরের লোক উপস্থিত ছিলেন্।
শনিবার বেলা ১২টায় আখেরী মুনাজাতের মধ্যে দিয়ে সমাপ্ত ঘটবে প্রথমবারের চাঁদপুর জেলা আঞ্চলিক ইজতেমার।

LEAVE A REPLY