হেফাজতে ইসলামসহ ধর্মভিত্তিক কয়েকটি দলের অব্যাহত দাবির মুখে সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে ভাস্কর্য সরানো হয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে শুরু হয় ভাস্কর্য সরানোর কাজ। রাত চারটার দিকে ভাস্কর্যটি সরানোর কাজ শেষ হয়।
এটি নিয়ে আলোচনা ও সমালোচনর যেন শেষ নেই
বিভিন্ন অনলাইন গেটে পাঠকদের কিছু মন্তব্য সংগ্রহ করে একত্রিত করা হল । সংগ্রহে মোঃ লায়েস মন্ডল ।
Md. Golam mamun Chy
90% মুসলিম জনগোষ্ঠীর মতামত কে প্রাধান্য দেওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ.

Ebrahim Hossain
ঐ ‘মূর্তির’ নাম কী, গুণগতমান খারাপ না ভালো বা আমাদের ঐতিহ্যের সাথে এর সামঞ্জস্যতা আছে কি নাই সে বিবেচনায় এটাকে সরানো হয়নি । হেফাজতের মতো একটি উগ্র সাম্প্রদায়িক সংগঠনের আস্ফালনের কারণে তা রাতের আঁধারে চুপিসারে অপসারিত হলো। তারা না চাইলে কেউ হয়তো কখনও প্রশ্নই উঠাতো না, এর অপসারণও চায়তো না। রাষ্ট্র এটাকে স্থাপন করেছে নিজে থেকে কিন্তু অপসারণ করলো অপশক্তির চাপে। প্রশ্ন এটাই, তাহলে কি তারা রাষ্ট্রের চেয়ে শক্তিশালী ?
পাঠ্যপুস্তকের বেলায়ও তাদের পছন্দের বাইরে যাওয়ার সাহস করেনি কেউ।

Abdul Hannan Paul
বির্ধমীরা ই এর বিরোধীতা করবে, সরকার কে অসংখ্য ধন্যবাদ ।
৯০ ভাগ মুসলমান দেশে , মুসলমানের আবেগের মুল্য দিয়ে , সরকার ভালো কাজ করেছে ।

Md. Nazmul Haque
সব সৌন্দর্য ঐ ভাস্কর্যে? ন্যায়বিচার নিশ্চিতের জন্য ঐ ভাস্কর্য স্থাপন? ভাস্কর্য স্থাপন কোন ধর্মে নিষিদ্ধ হলে ঐ ভাস্কর্য কোন রাষ্ট্রের বিচার বিভাগের সামনে স্থাপন ধর্মনিরপেক্ষতা? ভাস্কর্য স্থাপন ছাড়া ন্যায়বিচার নিশ্চিত সম্ভব কি? ভাস্কর্য স্থাপনের পরে আমাদের বিচার বিভাগের উল্লেখযোগ্য কোন পরিবর্তন হয়েছে?

Faruk Hossain
বৃহত জনগোষ্ঠীর মতামত কে প্রাধান্য দেওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।

Jewel Das
হেফাজতের কাছে সরকার পরাজিত হয়েছে।

Asim Das Amit
এরপর অপরাজেয় বাংলা, শহীদ মিনার ও স্মৃতিসৌধকে কি করে বাঁচাবে সরকার?

আন্দালিব
এই ভাস্কর্য সরানোর সুদূরপ্রসারী ফল মঙ্গলকর হবে না।

আন্দালিব
ফরাজী আশরাফ, ‘মুর্তি সরানের পক্ষে বাংলাদেশের ৯৯% মানুষ।’ এই জরিপ কই পাইলেন? কেন মিথ্যাচার করেন? এসব মিথ্যাচার কি ধর্মের শিক্ষা হতে পারে?

Main Uddin Ahmed
তা মধ্যরাতে চোরের মত সরানো হল কেন?

ফরাজী আশরাফ, শরীয়তপুর
গণতন্ত্র হল অধিকাংশ মতকে প্রাধান্য দেওয়া। মুর্তি সরানের পক্ষে বাংলাদেশের ৯৯% মানুষ।

tushar
এই ঘটনা বিএনপি আমলে হলে কি হত? আ্ওয়ামী লীগ, তাদের সহযোগী তথাকথিত নাগরিক সমাজ আর সুশীলরা তখন “হায় হায়, সব গেল” বলে দিকে দিকে আওয়াজ তুলত। আজকে তারা চুপ করে আছে, শুধু মৃণাল হক একাই কথা বলছেন। জয় হল কিন্তু সেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধীদের

M Kazi Foysal
জেনে ভালো লাগছে অবশেষে বিকৃত ভাষ্কযটি অপসারন করা হয়েছে।

SM Billah
তোমরা তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারক বাহক! তোমরা অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির পথিকৃৎ! তাই তোমরা ভাস্কর্যকে মুর্তি হিসেবে আখ্যা দিতে পারো। তাই তোমরা গভীর রাতে সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে ‘মুর্তিটি’ উপড়েও ফেলতে পারো। ধিক তোমাদেরকে!

biplob
সরকার আম, ছালা দুটিই হারাবে !!!

Istiaque
হেফাজতের জয় হয়েছে। জয় হয়েছে। জয় হয়েছে।

Mohammed
ধর্ম ও গণতন্ত্র দুটো আলাদা বিষয়। কিন্তু যারা এসবের ব্যবসায়ী তারা স্ব স্ব স্বার্থে বৃহত্তর মুনাফার খাতিরে জোট বাঁধতে পিছপা হয় না – মুনাফার চেয়ে বড় আর কিছু নেই তাদের কাছে !

Suvasish Das
বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির শেষ প্রতীক ছিলেন বর্তমানের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা| অথচ তাঁর নির্দেশেই হেফাজত ইসলামের অন্যায় আবদার পূরণ হলো|